বোমা ফাটিয়ে ১৭ লাখ টাকা ছিনতাই মামলার প্রধান আসামিসহ আটক ২3 মিনিটে পড়ুন

40

বোমা ফাটিয়ে ও ছুরিকাঘাত করে ব্যাংকের সামনে থেকে ১৭ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় আরও ২ আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ ও র‌্যাব।
যশোরে ব্যাংকের সামনে থেকে ১৭ লাখ টাকা ছিনতাই মামলার অন্যতম দুই আসামিকে আটক করেছে পুলিশ ও র‌্যাব। এ সময় ছয় লাখ ৫১ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। আটক এ দু’জন হচ্ছেন যশোর শহরের মোল্লাপাড়া আমতলার লিটন হোসেনের ছেলে ইয়াসিন আরাফাত রাজু ও শহরতলীর ধর্মতলা খ্রিস্টান কবরস্থানের পাশের তবিবর রহমানের ছেলে সোহেল শেখ। এ দুই জনকে ছিনতাইয়ের পর ঘটনাস্থলের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে শনাক্ত করে পুলিশ।

সোমবার দুপুর ২টায় যশোর শহরের ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের সামনে এক সংবাদ সম্মেলনে যশোরের পুলিশ সুপার আশরাফ হোসেন জানান, সোমবার ভোরে ঢাকার আদাবর শান্তির বিল এলাকায় অভিযান চালিয়ে আটক করা হয় মামলার প্রধান আসামি ইয়াসির আরাফাত রাজুকে। এ সময় তার কাছ থেকে লুণ্ঠিত এক লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়। এর আগে শনিবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে মাগুরার আড়পাড়ায় বরিশাল থেকে আসা যশোরের বেনাপোলগামী একটি বাস থেকে আরাফাতের মা মেহেরুনকে আটক করে হেফাজতে নেয় পুলিশ। তার কাছ থেকে লুণ্ঠিত ৫ লাখ ৪০ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়।

এছাড়া র‌্যাব যশোর ক্যাম্পের সদস্যরা রবিবার নড়াইল জেলার লোহাগড়া উপজেলার কালনা ফেরিঘাট বাসস্ট্যান্ড থেকে অপর আসামি সোহেল শেখকে আটক করে। তবে তার কাছ থেকে কোনও টাকা উদ্ধার হয়নি।
গত ২৯ সেপ্টেম্বর দুপুরে প্রকাশ্যে যশোর শহরের ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের সামনে এনামুল হক নামে এক ব্যবসায়ীকে ছুরিকাহত করে তার কাছে থাকা ১৭ লাখ টাকা ছিনিয়ে নেয় দুর্বৃত্তরা। চলে যাওয়ার সময় একটি বোমার বিষ্ফোরণ ঘটায় ছিনতাইকারীরা। ঘটনার পর থেকে সোমবার পর্যন্ত ছিনতাইয়ে জড়িত মোট সাত জনকে আটক ও ৯ লাখ টাকা উদ্ধার করেছে পুলিশ। আটকদের মধ্যে সাঈদ ইসলাম শুভ ও টিপু নামে দু’জন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে বলে জানান পুলিশ সুপার।
সোমবার ঘটনাস্থলে আয়োজিত ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার আরও জানান, বাকি টাকা উদ্ধার ও জড়িত অন্যদের আটকে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।