ধুনট উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতির পিতাকে পিটিয়ে জখম2 মিনিটে পড়ুন

31

 

ধুনট উপজেলা প্রতিনিধি।

বাড়ির সীমানা নিয়ে বিরোধের জের ধরে বগুড়ার ধুনট উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান পপি রানা সাহার পিতা পৌর আওয়ামী লীগের সদস্য সুনীল সাহা (৬০), তার স্ত্রী মায়া রানী (৫০) ও নাতি প্রীতম জিৎ বাবুকে (১৬) পিটিয়ে আহত করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন।

সোমবার দুপুর ১২টার দিকে ধুনট পৌর এলাকার সদর পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সুনীল সাহা দীর্ঘদিন ধরে ধুনট পৌর এলাকার সদর পাড়ায় বসবাস করে আসছেন। সোমবার দুপুরের দিকে তিনি বাড়ির সীমানা ঘেষে নতুন ঘর তৈরীর কাজ শুরু করেন। এসময় একই এলাকার প্রতিপক্ষ অতুল সাহার ছেলে রনজিৎ সাহা, নন্দন সাহা ও রনজিৎ সাহার স্ত্রী বন্ধনা রানী তার কাজে বাঁধা দেন। বাড়ির সীমানা নির্ধারণ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে বাগবিতান্ডা শুরু হয়। বাগবিতান্ডার এক পর্যায়ে রনজিৎ, নন্দন ও বন্ধনা রানী ক্ষিপ্ত হয়ে সুনীর সাহাকে এলোপাথারি মারপিট শুরু করেন।

এসময় তাকে রক্ষা করতে স্ত্রী ও নাতি এগিয়ে এলে তাদেরকেও পিটিয়ে আহত করা হয়। পরে স্থানীয় লোকজন আহতদের উদ্ধার করে ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

এ বিষয়ে আহতের মেয়ে ধুনট উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পপি রানী সাহা বলেন, হত্যার উদ্দেশে আমার মা-বাবা ও ছেলের উপর হামলা চালিয়েছে প্রতিপক্ষের লোকজন। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

ধুনট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা জানান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের বাবাকে মারপিটের ঘটনা শুনেছি। এখন পর্যন্ত কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।