নারী দলের প্রধান নির্বাচক মঞ্জুরুল ইসলাম2 মিনিটে পড়ুন

79

বগুড়া এক্সপ্রেস ডেস্ক।

তার ক্যারিয়ারটা আক্ষেপের অন্য নাম হয়েই আছে। লম্বা সময় ধরে জাতীয় দলে খেলা হয়নি। ১৯৯৯ থেকে ২০০৪। এরপরই জাতীয় দলের জার্সি সোনার হরিণ হয়ে যায় মঞ্জুরুল ইসলামের কাছে। জাতীয় দলের এই পেসার এরপর থেকে অনেকটা আলোচনার বাইরে ছিলেন। এবার নতুন দ্বায়িত্ব পেলেন এই বাঁহাতি। নারী ক্রিকেট দলের প্রধান নির্বাচক পদে তাকে নিয়োগ দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

সাবেক ক্রিকেটার ও ধারাভাষ্যকার আতহার আলী খান এতোদিন ছিলেন এই দ্বায়িত্বে। আন্তর্জাতিক ধারাভাষ্যকার হিসেবে ব্যস্ত তিনি। এ অবস্থায় তার জায়গায় মঞ্জুরুল ইসলামকে বেছে নিয়েছে বিসিবি।

বিসিবির উইমেন্স উইংয়ের চেয়ারম্যান নাদেল চৌধুরী জানাচ্ছিলেন, ‘মঞ্জুকে মেয়েদের ক্রিকেটের প্রধান নির্বাচক করেছি। ওর চুক্তিটা এক বছরের। মেয়াদ শুরু নভেম্বর থেকে। তবে চুক্তি বাড়ানোর সুযোগ থাকবে। সেক্ষেত্রে মূল্যায়ন করে পরে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

জাতীয় দলের হয়ে ১৭ টেস্ট ও ৩৪টি ওয়ানডে খেলেছেন মঞ্জুরুল। এমন দ্বায়িত্ব পেয়ে তিনি খুশি। জানাচ্ছিলেন, ‘বিসিবি এই প্রস্তাব দিয়ে বলেছিল, আমি আগ্রহী কিনা। আমি তাদের ইতিবাচক জবাব দিয়েছি। অনেক দিন ধরে বিসিবির সঙ্গে কাজ করতে মুখিয়ে ছিলাম। এ কারণেই চ্যালেঞ্জ নিতে অপেক্ষায় আছি।’

মঞ্জুরুল ইসলাম খেলা ছেড়ে দেওয়ার পর এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের হয়ে চীনে ডেভেলপমেন্ট কোচ হিসেবে কাজ করেছেন।