দেশের প্রতিটি জেলা থেকে ত্যাগী নেতাদেরকে কৃষক লীগে স্থান দেওয়া হয়েছে। বগুড়ায় এম,পি, স্মৃতি4 মিনিটে পড়ুন

69

প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

বাংলাদেশ কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক ও গাইবান্ধা-৩ (সাদুল্লাপুর-পলাশবাড়ী) আসনের সংসদ সদস্য এ্যাডভোকেট উম্মে কুলছুম স্মৃতি বলেছেন, দেশের প্রতিটি জেলা থেকে ত্যাগী, পরীক্ষিত এবং নবীন-প্রবীণদের বাংলাদেশ কৃষক লীগের পূর্নাঙ্গ কমিটিতে স্থান দেয়া হয়েছে।  সংগঠনের সাংগঠনিক নেত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার অনুমোদন নিয়ে এ কমিটি ঘোষণা করা হয়। কৃষক লীগকে সুসংগঠিত করার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যথেষ্ট ভূমিকা রেখেছেন। শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে সকল নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। তিনি বলেন, কৃষিতে আমাদের এখনো অনেক কিছু করতে হবে। কৃষক লীগ করতে হলে কৃষকের দরদ বুঝতে হবে, কৃষিকে ভালোবাসতে হবে। কৃষকের কল্যাণে সময়োপযোগী, বাস্তবমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করে অবিচল নিষ্ঠা ও সততার সঙ্গে নিজেকে আত্মনিয়োগ করা কৃষক লীগের নেতা কর্মীদের দায়িত্ব। দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য যেভাবেই হোক কৃষিতে আরও সাফল্য আনতে হবে। কৃষির আধুনিকায়ন তথা যান্ত্রিকীকরণ,বাণ্যিজিকীকরণ এবং বাজারজাতই কৃষির উন্নয়ন অগ্রযাত্রার নিয়ামক। সরকারের কৃষিবান্ধব নীতির ফলে কৃষিতে অভুতপুর্ব উন্নতি হয়েছে। অতীতের সকল রেকর্ড ভঙ্গ করে আরো উন্নতি ঘটানোর জন্য পুরোপুরি যান্ত্রিকীকরণের পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে।কৃষি যেভাবে অগ্রসারমান তাতে আগামীতে আরো উন্নীত হওয়ার প্রত্যাশা করা হচ্ছে। বিশ্বের অন্যান্য উন্নয়নশীল দেশের তুলনায় বাংলাদেশের কৃষির বিস্ময়কর উন্নয়ন ও অগ্রগতি নিঃসন্দেহে বিরাট অর্জন।বিশেষ করে একই জমিতে বছরে একাধিক ফসল চাষে বিশ্বের মধ্যে রেকর্ড সৃষ্টি করেছে। কৃষিজমির বিপরীতমুখী চাপ সত্তেও বাংলাদেশের বর্তমান খাদ্যশস্য উৎপাদন বেড়েছে বলেন উম্মে কুলছুম স্মৃতি।উম্মে কুলছুম আরো বলেন; উন্নয়ন ধারা অব্যাহত রাখতে,কৃষি ও কৃষকের পাশে দাড়াতে কৃষক লীগের প্রত্যেক নেতা কর্মীকে ভূমিকা রাখতে হবে। সবাইকে সজাক থাকতে হবে, সংগঠিত হয়ে থাকতে হবে যে কোন ষড়যন্ত্র মোকাবেলায়। দূর্নীতি দূবৃত্তায়নের পথে যারা রয়েছে তাদের সঠিত পথে ফিরে আশার আহবান জানান তিনি। বুধবার দুপুরে বগুড়া পর্যটন মোটেলে জেলা কৃষক লীগের এক মতবিনিময় সভায় তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। বগুড়া জেলা কৃষক লীগের সভাপতি মো. আলমগীর বাদশার সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় কৃষক লীগের নবনির্বাচিত কৃষি ও পূর্ণবাসন বিষয়ক সম্পাদক আজমল হোসেন।সংগঠনের জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মো. মঞ্জুরুল হক মঞ্জুর সঞ্চালনায় এতে উপস্থিত ছিলেন সহ-সভাপতি আনোয়ার পারভেজ বাবু, আবু বক্কর সিদ্দিক রাজা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বাদল রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আখতারুজ্জামান তুষার, প্রচার সম্পাদক মাহমুদ খান ডন, অর্থ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম সাগর, বকুল আহম্মেদ, মিজানুর রহমান মিজান,  বকুল মিয়া, জাকিউল ইসলাম লিটন, খালেকুজ্জামান খালেক, আরপি গুপ্ত, বিথিী আক্তার, আব্দুল হাই, শহর শাখার আহবায়ক মাসুদ রানা সরকার, আবুল কালাম আজাদ ঠান্ডা, আবুল কালাম আজাদ, গোলাম মোস্তফা লিটন, নাহিদুজ্জামান নাহিদ প্রমুখ।