অনৈতিক কার্যকলাপ: আদমদীঘিতে বোর্ডিং ম্যানেজার ও নারীসহ গ্রেফতার ৬2 মিনিটে পড়ুন

61

আদমদীঘি(বগুড়া) প্রতিনিধি

পুলিশ ও কতিপয় রাজনৈতিক নেতাদের সখ্যতায় কোনক্রমেই থামানো যাচ্ছেনা সান্তাহারে অবস্থিত বেশ কিছু আবাসিক বোর্ডিংয়ে নারী ব্যবসা ও জুয়ার আসর। ফলে এই নেশায় অনেক যুবকরা ধাবিত হয়ে সর্বস্ব হারিয়ে ফেলে পরিবারের সাথে দূরত্ব সৃষ্টি করছে। গত ২৪ অক্টোবর শনিবার ভোর রাতে পুলিশ ফের অভিযান চালিয়ে সান্তাহার পলাশ বোর্ডিংকে অনৈতিক কার্যকলাপের অভিযোগে ম্যানেজার বাবু ও তিন যৌন কর্মিসহ ৬জনকে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলো, পলাশ বোডিংয়ের ম্যানেজার বদলগাছির সমছা গ্রামের বাবু (৩৬), নওগাঁর রানীনগরের রাতোয়ালের আব্দুস ছাত্তারর (৪৫) দুবলহাটির ময়নুল ইসলাম (২৮), নোয়াখালি জেলার কবিরহাট উপজেলার শুকলামদ্দি গ্রামের পলি আক্তার (২১), কুমিল্লার লাঙ্গলকোট উপজেলার চাটিতলার লাবনী আক্তার (২৪) ও রাজশাহির বোয়ালিয়ার আলুপট্রির নিলুফা ইয়সমিন (২৮)।

জানাযায়, আদমদীঘি সান্তাহার এলাকায় ১৪ টির অধিক  আবাসিক বোর্ডিং রয়েছে। এখানকার অধিকাংশ বোর্ডিংয়ের কোন বৈধ কাগজপত্র নেই। কতিপয় আবাসিক বোর্ডিিংয়ের মালিক ও ম্যানেজার পুলিশ ও কিছু রাজনৈতিক ব্যক্তির সাথে সখ্যতা গড়ে তুলে বোডিংয়ে যৌনকর্মি সরবারহ করে দেহ ব্যবসার পাশাপাশি জুয়ার আসর চালিয়ে আসছিল।

আদমদীঘি থানা পুলিশ গত ১৬ জানুয়ারী থেকে অদ্যবদি পলাশ, মুন, শুভ, সাফিনসহ কয়েকটি বোডিংয়ে অভিযান চালিয়ে বোডিং ম্যানেজার ও যৌনকর্মিসহ ৪৯ জনকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃতদের জেলহাজতে প্রেরনসহ অনেককে ভ্রাম্যমাআ আদালতে জরিমানা করা হলেও কোন ভাবেই থামানো যাচ্ছেনা সান্তাহারের কিছু বোর্ডিিংয়ে দেহ ব্যবসা ও জুয়া খেলার আসর।

আদমদীঘি থানার অফিসার ইনচার্জ জালাল উদ্দীন জানান, সান্তাহারে বোর্ডিং অনৈতিক কাজ বন্ধে সকল প্রকার আইন প্রয়োগ অব্যাহত থাকবে।