৮ দফা না মানলে ১ নভেম্বর থেকে কর্মবিরতিতে যাবে রাজশাহী বিভাগীয় পরিবহন মালিক-শ্রমিক4 মিনিটে পড়ুন

56

প্রেস রিলিজ: রাজশাহী বিভাগের ৮টি জেলায় অনিয়মতান্ত্রিক ভাবে চলাচলকারী বিআরটিসি বাস বন্ধ সহ ৮ দফা না মানলে ১ নভেম্বর থেকে কর্মবিরতিতে যাবে রাজশাহী বিভাগীয় পরিবহন মালিক-শ্রমিকরা। শনিবার বিকেলে বগুড়ায় এক জরুরী সভায় এ ঘোষনা দিয়েছে রাজশাহী বিভাগীয় পরিবহন মালিক শ্রমিক যৌথ কমিটি। সড়ক মহাসড়ক ও আঞ্চলিক সড়কে চলাচলরত ইজি ইজিবাইক, মাহেন্দ্র, নসিমন, করিমন, ভটভটি, থ্রি-হুইলার, অটোরিক্সা, অটোটেম্পু এবং সকল শ্রেণীর অযান্ত্রিক যানবাহন চলাচল বন্ধ করার দাবী জানানো হয় সভায়। বগুড়া চারমাথা সেঞ্চুরী মোটেলে রাজশাহী বিভাগীয় পরিবহন মালিক শ্রমিক যৌথ কমিটির সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ আনছার আলী। সভায় রাজশাহী বিভাগের ৮ জেলার মালিক ও শ্রমিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। নেতৃবৃন্দ রাজশাহী বিভাগীয় পরিবহনে গাড়ী চলাচলে জটিলতা নিরসন কল্পে বক্তব্য রাখেন। সভায় উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন রাজশাহী বিভাগীয় পরিবহন মালিক শ্রমিক যৌথ কমিটির কার্যকরী সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ রফিকুল ইসলাম, সাধারন সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, সহ-সভাপতি শফিকুল ইসলাম, রাজশাহী বিভাগীয় সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি সাফ্ফাত মঞ্জুর বিপ্লব, কার্যকরী সভাপতি আবু হাসান খান রেয়ন , সিনিঃ সহ-সভাপতি শফিকুল ইসলাম, তৌফিক হাসান ময়না, শফিকুল ইসলাম, বগুড়া জেলা মোটর মালিক গ্র“পের সভাপতি শাহ্ মোঃ আখতারুজ্জামান ডিউক, বগুড়া মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক সামছুদ্দিন শেখ হেলাল, ব জেলা ট্টাক মালিক সমিতির সাধারন সম্পাদক আব্দুল মতিন সরকার, রাজশাহী জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক মাহতাব হোসেন চৌধুরী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা সড়ক পরিবহন গ্রুপের সভাপতি সাইদুর রহমান, উল­াপাড়া সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপ সাব্বিরুল ইসলাম সাব্বির সহ যৌথ কমিটির নেতৃবৃন্দ। সভা পরিচালনা করেন যৌথ কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল মোর্শেদ আপেল। শেষে সভার সভাপতি আগামী ৩১ অক্টোবরের মধ্যে ৮ দফা দাবী মেনে নেয়ার জন্য আহবান জানান। অন্যথায় ০১ নভেম্বর থেকে রাজশাহী বিভাগীয় পরিবহন মালিক শ্রমিক অনির্দিষ্ট কালের জন্য কর্ম-বিরতি শুরু করবে।
দাবী সমূহ হলো রাজশাহী বিভাগের ৮টি জেলায় অনিয়মতান্ত্রিক ভাবে যে সব বিআরটিসি চলাচল করছে তা বন্ধ করতে হবে। বিআরটিসির নামে ব্যাক্তিমালিকানায় চলাচলরত সকল গাড়ী বন্ধ করতে হবে। বিআরটিসির লীজ প্রথা বাতিল করতে হবে। সড়ক, মহাসড়ক, আঞ্চলিক সড়কে চলাচলরত ইজি ইজিবাইক/ মাহেন্দ্র / নসিমন/ করিমন / ভটভটি / থ্রি-হুইলার অটোরিক্সা / অটোটেম্পু এবং সকল শ্রেণীর অযান্ত্রিক যানবাহন চলাচল বন্ধ করতে হবে।সড়ক ও মহাসড়কে বাস, ট্টাক হতে অবৈধ চাঁদা উত্তোলন বন্ধ করতে হবে। বগুড়া, নওগাঁ, জয়পুরহাট ও সিরাজগঞ্জ এর শ্রমিক ইউনিয়নের বার্ষিক রিটার্ণ বগুড়া শ্রম দপ্তরে দাখিল করার ব্যবস্থা গ্রহন করতে হবে। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশণ, বাংলাদেশ বাস, ট্টাক ওনার্স এসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ ট্টাক কাভার্ভভ্যান মালিক সমিতি কর্তক সড়ক পরিবহনে সংগঠন পরিচালনা ব্যয়/সার্ভিস চার্জ সম্পর্কিত নির্দেশিকার পূর্ণ বাস্তবায়ন করতে হবে। ২৮-০৭-২০১৫ তারিখের স্মারক নং-৩৫.০৩.০০.০০.৩১.০১৮.২০১৪-২২৮৫ এবং ০৫-০৬-২০১৪ তারিখের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করতে হবে।