উন্নয়ন, সমৃদ্ধি ও আধুনিক সোনারায় ইউনিয়ন গড়তে আ’লীগের দলীয় নৌকার মাঝি হতে চান মজিবুর রহমান আলতাব5 মিনিটে পড়ুন

50

 

==================================

এস,এম সালমান হৃদয় পীরগাছা (বগুড়া) প্রতিনিধি :

বগুড়ার গাবতলী উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নকে উন্নয়ন সমৃদ্ধি আধুনিক সোনারায় ইউনিয়ন গড়তে আওয়ামী লীগের দলীয় নৌকার মাঝি হতে চান পরিশীলিত তৃণমূল রাজনৈতিক মজিবুর রহমান আলতাব । আওয়ামী লীগের পরীক্ষিত রাজনৈতিক, ১৯৯৩ থেকে ২০০০ সার পর্যন্ত গাবতলী উপজেলা ছাত্রলীগের রাজনীতি ২০০২থেকে ২০১২ পর্যন্ত গাবতলী উপজেলা যুবলীগের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ও সক্রিয়। প্রতিটি পদে পরীক্ষিত দায়িত্ব পালনসহ ২০১৩ সালের কাউন্সিলের মাধ্যমে সোনারায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছি। প্রতি পদে থেকে হাজারো ত্যাগের নজিরবিহীন উদাহরণের প্রধানতম চরিত্রের নাম মজিবুর রহমান আলতাব । দীর্ঘদিনের ত্যাগ, অভিজ্ঞতা আর সর্বমহলে ভালবাসায় অভিষিক্ত সোনারায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক মজিবুর রহমান আলতাফ। গাবতলী ও শাহজাহানপুর এলাকার মাটি ও মানুষের নেতা প্রয়াত এ এইচ আজম’র স্নেহধন্য বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও বগুড়া শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব রফি নেওয়াজ খান রবিন,গাবতলী উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুস সালাম ভূলন,সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা আব্দুর রাজ্জাক মিলু ও সোনারায় ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান, গাবতলী উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রাঙ্গা এর আস্থাভাজন সর্বজন শ্রদ্ধেয় মজিবুর রহমান আলতাফ আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন নিয়েই সোনারায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নৌকার মাঝি হতে চান। তবে তিনি দাবি করেছেন, তার চেয়ে ত্যাগী, জনহিতৌষী, উন্নয়ন কর্মকান্ডে আস্থাশীল ব্যক্তি থাকলে দল যদি মনে করেন তাকে দলীয় মনোনয়ন দিবেন তাহলে তার কোন আপত্তি নেই। মসজিদ, মাদ্রাসা, বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রধান পৃষ্ঠপোষকের গুরু দায়িত্ব পালনকারী মজিবুর রহমান আলতাফ -এর জনপ্রতিনিধিত্বের মাধ্যমে মানুষের কল্যাণে কাজ করতে আগ্রহী। একারণেই এলাকাবাসীর দাবি এবারে তিনি চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে প্রতিদ্বদ্বীতা করুক। তিনি জানিয়েছেন, বিগত নির্বাচনে দলের পক্ষে তাকে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন টিকিট না দেওয়ায় তিনি নির্বাচনে যায় না দলের প্রার্থীর পহ্মে কাজ করেছেন। তবে এবার এলাকার উন্নয়নের স্বার্থে তিনি দলীয় মনোনয়নের ভিত্তিতে নির্বাচন করতে ইচ্ছুক। কোন অপসংস্কৃতি ভর না করলে তিনি শতভাগ আশাবাদী। তিনি দলীয় মনোনয়ন পেলে সোনারায় ইউনিয়নের নির্বাচনে বিপুল ভোটের ব্যাবধানে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হবেন বলে দাবি করেছেন। তবে দলীয় মনোনয়ন ও নির্বাচনে জয়ী হলে দল-মত, নির্বিশেষে তিনি এলাকার উন্নয়নে কাজ করবেন বলে জানিয়েছেন। প্রায় ২০, ০০০/- হাজার মানুষের বসবাস এই ইউনিয়নে। তাদের চাহিদা উন্নয়নের। নিশ্চিতভাবে সে উন্নয়ন করতে তিনি আগ্রহী। দলের অনেক নেতাকর্মীদের অভিমত দলীয় মনোনয়ন ও মানবিক গুণাবলীর দিক দিয়ে মজিবুর রহমান আলতাফ সর্বগুণে গুণান্বিত। তাই তার বিজয় নিশ্চিত। মজিবুর রহমান আলতাফ জানান, যুবলীগ সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক এর দায়িত্ব পালন করেছি। রাস্তা, ঘাট,ব্রীজ কালভাট, স্কুল কলেজ, অসহায় মানুষের চিকিৎসা,সহ বহুমুখী সামাজিক ও পারিবারিক উন্নয়ন মুলক কাজে সহযোগিতা করে আসছি। এবং জামিরবাড়িয়া গ্রামে একটি অটিস্টিক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী বিদ‍্যালয় স্থাপন করিয়াছি – যা গ্রামের শতবছরের আশা পুরন হয়েছে ।
সারা জীবন মানুষের জন্য রাজনীতি করেছি। অপরাধ করলে দল বলে কাউকে ছাড় দেইনি। জীবনের শেষ চাওয়া, শেস সময়ে এসে মানুষের জন্যই আরো কিছু করার তাগিদ অনুভব করছি। তাই যদি দল আমাকে সোনারায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন দেন তবে আল্লাহ ছাড়া কেউ আমার বিজয় ঠেকাতে পারবেনা। আল্লাহর উপর ভরসা রেখে দলের নেতাকর্মীসহ সকলের সহযোগিতায় দলীয় মনোনয়ন পেতে আমি নিজেকে যোগ্য ও হকদার বলে মনে করছি।