শাজাহানপুরে নিরাপত্বাহীনতায় মাথাইল চাপড় গ্রামের মানুষ4 মিনিটে পড়ুন

49

 

শাজাহানপুর(বগুড়া)প্রতিনিধিঃ বগুড়া শাজাহানপুর উপজেলার আশেকপুর ইউনিয়নের মাথাইল চাপড় গ্রামে সান্ত্রাসীদের কারণে নিরাপত্বাহীনতায় ভূগছে ওই গ্রামের সাধারণ মানুষ। গত ৪এপ্রিল এই এলাকায় প্রতিপক্ষের হাতে ইউসুফ আলী প্রামানিকের ছেলে আবু বকর সিদ্দিক(২৩) খুন হলে চাঁদাবাজিতে নামে একটি পক্ষ। মামলায় ফাঁসানোর ভয় দেখিয়ে টাকা নেয় ব্যবসায়ী সহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের কাছ থেকে। ভয়ে ব্যবসা, বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যান অনেকে। পুলিশি তৎপরতায় কেউ কেউ বাড়িতে ফিরতে পারলেও অনেকেই এখনো বাড়িতে ফিরতে পারছেন না। দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত সন্ত্রাসী মোহরা গ্রামের মানুষকে আতংকিত করছে। এসব ঘটনায় প্রতিকার পেতে ওই গ্রামের চায়না বেগম শাজাহানপুর থানায় অভিযোগ সহ অনুলিপি দেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার, পুলিশ সুপার এবং জেলা প্রশাসকের কাছে। অপরদিকে অভিযোগের বিষয়টি মিথ্যা বলে গতকাল শনিবার বগুড়া প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন অপর পক্ষ ইউছুফ আলী প্রামানিক।
চায়না তার অভিযোগে বলেন, স্থানীয় সাগর বাহিনীর সদস্য সন্ত্রাসী মনির হোসেন, ইউসুফ হোসেন, ই¯্রাফিল হোসেন, পিন্টু মিয়া, সহ তাদের সহযোগীরা পুরো মাথাইল চাপড় সহ আশপাশের গ্রামের মানুষদের জিম্বী করে রেখেছে। রানীরহাট এলাকার সন্ত্রাসী হযরত এর ছত্র ছায়ায় এরা আধিপত্য বিস্তার করছে। কিছুদিন আগেসন্ত্রাসীরা দেশীয় ধারালো অস্ত্র সহ তার বাড়িতে হামলা চালিয়ে টয়লেটের গ্যাস পাইপ ভাংচুর সহ জানালা কুপিয়ে কেটেছে। প্রায় প্রতি রাতে এই সন্ত্রাসীরা দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে পাড়ার ভেতরে মোহরা দেয় এবং দীর্ঘক্ষন মাদক সেবন করে। ইতিপূর্বে মামলায় ফাঁসানোর ভয় দেখিয়ে এই বাহিনী শাবরুল বাজারে ছিট কাপড় ব্যবসায়ী আব্দুস সালামের কাছ থেকে ২০হাজার টাকা চাঁদা নিয়েছে। শফিকুল ড্রাইভারকে একই ভয় দেখিয়ে বাহিনীর সদস্যরা ১লক্ষ টাকা চাঁদা নিয়েছে। শাবরুল ছোট হিন্দু পাড়া গ্রামের পরিমলের ছেলে নাপিত সুমনের কাছে ৩লক্ষ টাকা দাবী করেছিলো এই বাহিনী। চাহিদা মত টাকা দিতে না পারায় শাবরুল বাজারের নাপিত সুমনকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়েছিলো এই সন্ত্রাসীরা। ৭০হাজার টাকা দিয়ে ছাড়িয়ে এনেছিলেন সুমনের পিতা পরিমল চন্দ্র। সন্ত্রাসীরা সেই সময় আরো ১লক্ষ টাকা দাবি করেছিলো। এরপর সুমন তার ছোট ভাই গৌরাঙ্গ, স্ত্রী এবং ৪বছরের সন্তানকে নিয়ে গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে যায়। সম্প্রতি পুলিশি সহযোগীতায় তারা গ্রামে ফিরে এসেছে তবে সন্ত্রাসীদের নেয়া সেই টাকা এখনো উদ্ধার হয়নাই।
ওই গ্রামের মোস্তফা, রঞ্জু, সেলিম, বাবলুর বোন, বুলু সহ অনেকে জানান, এই সন্ত্রাসীদের ভয়ে তাদের ছেলেরা গত ৭মাস ধরে বাড়িতে আসতে পারছেনা। দীর্ঘ দিন সন্তানের মুখ দেখতে পায়না এই পাড়ার বাবা মা। তার পরেও এই সন্ত্রাসীদের ভয়ে কেউ মুখ খোলার সাহস পায়না। সন্তানদের ফিরে পেতে এবং গ্রামে শান্তিতে বসবাস করতে তারা সাংবাদিকদের মাধ্যমে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাজে জোর দাবী রেখেছেন।
শাজাহানপুর থানার পরিদর্শক(সার্বিক) আজিম উদ্দীন জানান, পুলিশ কাজ করছে।
ইফসুফ আলী প্রামানিক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ছেলে আবু বক্কর সিদ্দিক হত্যার বিচার পাননি উল্টা এজাহারভূক্ত দুই আসামীর মা শাজাহানপুর থানায় বাদী সাক্ষীসহ কয়েকজনের নামে মিথ্যা একটি অভিযোগ দায়ের করে রেখেছেন। এ মামলায় সঠিক বিচার পাওয়ার পথকে বাধাগ্রস্থ করতে সাক্ষীদের নামে এধরনের অভিযোগ করা হচ্ছে বলে তিনি দাবি করেছেন।