যুক্তরাজ্যে চার সপ্তাহের লকডাউন ঘোষণা2 মিনিটে পড়ুন

37

বগুড়া এক্সপ্রেস ডেস্ক

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় দ্বিতীয়বারের মতো দেশজুড়ে চার সপ্তাহের জন্য লকডাউনের ঘোষণা করেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। এবারের ক্রিসমাস ‘বেশ আলাদা’ হতে পারে। কিন্তু তিনি আশা করেন, এই সময়ে পদক্ষেপ নেওয়া মানে ভবিষ্যতে পরিবারের সবাই একসঙ্গে হতে পারবে।

তার ঘোষণা অনুসারে, বৃহস্পতিবার থেকে পাব, রেস্তোঁরা, জিম এবং অপ্রয়োজনীয় দোকান চার সপ্তাহ বন্ধ থাকবে। বিবিসি’র এক প্রতিবেদনে এই তথ্য দেওয়া হয়েছে।

তবে এবার স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ না রেখে চাইলে খোলা রাখা যেতে পারে। আগামী ২ ডিসেম্বরের পর এসব কড়াকড়ি শিথিল করা হতে পারে বলেও জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী ডাউনিং স্ট্রিটের এক সংবাদ সম্মেলনে জনসন জানান, লকডাউনের কারণে ব্যবসায় যে প্রভাব পড়বে তার জন্য সত্যিই দুঃখিত। তবে কর্মচারীদের ক্ষতি পোষাতে মজুরির ৮০% প্রদানের ফার্লু সিস্টেমটি নভেম্বরের মধ্যে বাড়ানো হবে।

করোনায় যে হারে মৃতের সংখ্যা বাড়ছে এতে পরিস্থিতি গত এপ্রিলের চেয়েও খারাপ হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন জনসন। এ প্রসঙ্গে জনসন বলেন, ‘কোনও দায়িত্বশীল প্রধানমন্ত্রী’ এমন মৃত্যুর পরিসংখ্যানকে উপেক্ষা করতে পারেন না।এপ্রিলের থেকে সামনে আরও খারাপ পরিস্থিতি হতে পারে। সামনে আরও হাজার হাজার মানুষ মারা যেতে পারে।

যুক্তরাজ্যের দক্ষিণ-পশ্চিমের হাসপাতালগুলোও এখন রোগী সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছে বলে জানান তিনি।

জনসন বলেন, চিকিৎসক ও নার্সরা রোগীদের চিকিৎসা করবেন, এর মধ্যে কেউ অক্সিজেন পাবেন এবং কেউ পাবেন না, কে বাঁচবেন এবং কে মারা যাবেন- এব ভেবে লকডাউন বেছে নিতে বাধ্য হয়েছি।

যুক্তরাজ্যে শনিবার ২৪ ঘণ্টায় ২১ হাজার ৯১৫ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্ত হয়েছেন। দেশটিতে আরও ৩২৬ জনের মৃত্যু হয়। আন্তর্জাতিক জরিপ পর্যালোচনাকারী সংস্থা ওয়ার্ল্ড ওমিটারের ওয়েবসাইট অনুসারে দশ লাখ ১১ হাজারের বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছে দেশটিতে।