খাওয়া কিংবা রূপচর্চা নয়, রয়েছে ডিমের নানাবিধ ব্যবহার!4 মিনিটে পড়ুন

30

বগুড়া এক্সপ্রেস ডেস্ক

প্রাকৃতিক উপাদানের মধ্যে ডিম যেন রাজত্ব করে চলেছে যুগ যুগ ধরে। খাওয়াদাওয়া থেকে রূপচর্চায় ডিমের ব্যবহার অতুলনীয়। প্রোটিনের অন্যতম উৎস ডিম যে শুধু শরীরে প্রোটিনের চাহিদাই পূরণ করে তা নয়, বরং সৌন্দর্য চর্চায়ও রাখে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। তবে শুধুমাত্র খাওয়া ও সৌন্দর্য চর্চায় নয় ডিম দিয়েই আপনি সারিয়ে ফেলতে পারেন কাটাছেঁড়ার দাগ কিংবা ঝকঝকে করে ফেলতে পারেন পুরানো গয়নাও।

ডিমের এই অজানা ব্যবহারগুলি জানলে কাজে লাগাতে পারবেন আপনিও। জেনে নিন ডিমের নানাবিধ ব্যবহার।

 

গয়না পরিষ্কার

রুপোর গয়না অল্প দিনেই কালো হয়ে যায়। তবে ডিম এই গয়নাগুলোকে পরিষ্কার করে ঝকঝকে করে দিতে পারে সহজেই। ডিম খুব শক্ত করে সিদ্ধ করে খোসা ছাড়িয়ে কুসুম আলাদা করে গুঁড়ো করে নিন। এ বার ঢাকনাযুক্ত পাত্রে প্রথমে কুসুম তারউপর হালকা কোনও পেপার টাওয়েল বিছিয়ে রাখুন রুপোর গয়নাগুলো। পাত্রের মুখের চার পাশে ময়দার প্রলেপ লেপে বায়ুনিরুদ্ধ করে বন্ধ করে দিন। দুদিন পর সেই গয়নাগুলো বার করলেই দেখবেন, কালো ভাব একেবারে উধাও। ডি-অক্সিডাইজার হিসেবে ডিমের এই ব্যবহার নানা গয়নাতেও ব্যবহার করা হয়।

রক্ত বন্ধ করতে

কোনও দুর্ঘটনাবশত কেটে গেলে দেখা যায় অনেক সময় রক্ত বন্ধ হতে চায় না। এ সময় ডিমকে কাজে লাগান। সিদ্ধ ডিমের খোলা ও সাদা অংশের মাঝে যা পাতলা খোসা থাকে তা ছাড়িয়ে নিন। সেই খোসা ক্ষতস্থানে চেপে ধরে রাখলেই রক্ত বন্ধ হবে দ্রুত। এমনকি দ্রুত ক্ষতের দাগ মেলাতেও এটি বেশ কার্যকর।

রয়েছে ডিমের নানাবিধ ব্যবহার.png
রয়েছে ডিমের নানাবিধ ব্যবহার। ছবি: সংগৃহীত

কন্ডিশনার

মাঝে মাঝেই গোসলে গিয়ে দেখেন কন্ডিশনার ফুরিয়ে গেছে। তাৎক্ষনিক পাওয়াও সম্ভব না। ঘরে থাকা ডিমের ব্যবহার করে ফেলুন এসময়। অলিভ অয়েল আর ডিমের কুসুম একসঙ্গে মিশিয়ে শ্যাম্পুর পর লাগিয়ে রাখুন চুলে। বাজারের বিভিন্ন কন্ডিশনারের চেয়ে এই ঘরোয়া ব্যবহারে চুল ভাল হবে।

গাছের জন্য

ডিম সিদ্ধ করার পানি ও ডিমের খোলা গুঁড়িয়ে গাছের গোড়ায় দিন। ডিমের খোলা গাছের শরীরে ক্যালসিয়ামের জোগান বাড়াতে খুব কার্যকর। গাছকে নানা পতঙ্গের হাত থেকেও বাঁচায় ডিমের খোলা।

জুতা পরিষ্কারে

পুরনো চামড়ার জুতার মধ্যে সাদা ঘোলাটে দাগ পড়ে যায়। ছত্রাকও জন্মাতে পারে। লকডাউনে জুতার ব্যবহারই তো কমে এসেছে। ডিমের সাদা অংশ কাপড়ে নিয়ে ঘষে ঘষে পরিষ্কার করুন।

আঠা হিসেবে

বাড়িতে আঠা ফুরিয়ে গেলে ময়দা, চিনি, ডিমের সাদা অংশ আর অল্প জল মিশিয়ে তৈরি করা যাবে আঠা। সেই আঠাই ব্যবহার করতে পারেন বিকল্প হিসেবে।