হানিমুনে প্রতি রাতে কাজলের খরচ ৩৩ লাখ টাকা2 মিনিটে পড়ুন

47

বগুড়া এক্সপ্রেস ডেস্ক

মধুচন্দ্রিমায় বলিউড অভিনেত্রী কাজল আগারওয়াল। শনিবার ইনস্টাগ্রামে পাসপোর্ট আর ব্যাগের ছবি দিয়ে গোপন রেখেছিলেন কোথায় যাচ্ছেন। পরে রবিবার মধুচন্দ্রিমার মুহূর্তগুলো সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করে সবাইকে জানালেন বেশ মজেছেন তিনি। স্বামীকে নিয়ে কাজল এখন আছেন মালদ্বীপের কনরাড দ্বীপে।

সমুদ্রের মাঝখানে একটা অবকাশযাপন কেন্দ্র থেকে ছবি পোস্ট করেছেন অভিনেত্রী কাজল আগারওয়াল ও তাঁর স্বামী গৌতম কিসলু। লাল বিচ গাউনে কাজলকে জড়িয়ে রেখেছেন গৌতম। ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘সুন্দর তুমি’। আরেকটি ছবিতে কয়েকটি প্রয়োজনীয় জিনিসের ছবি শেয়ার করে লিখেছেন, ‘সৈকতে আমার কিছু প্রয়োজনীয় জিনিস’।

মালদ্বীপে পৌঁছে বিলাসবহুল অবকাশযাপন কেন্দ্রের ছবি শেয়ার করেছেন গৌতম। গৌতম লিখেছেন, ‘বেড়াতে বের হয়ে খুব সৌভাগ্যবান মনে হচ্ছে। অবশ্য সতর্কতার সঙ্গেই বের হয়েছি। ধীরে ধীরে স্বাভাবিক দিনে ফিরছি…।’ ইনস্টাগ্রামে বিমানের ককপিটের ছবিও শেয়ার করেছেন গৌতম। সেখানে মজা করে লিখেছেন, ‘বিকল্প জীবিকা’।

ইনস্টাগ্রাম দেয়া ছবিতে কিসলু ও কাজল জানিয়েছেন, তাঁরা মালদ্বীপে রাঙ্গালি আইল্যান্ড রিসোর্টে আছেন। এ হোটেল মালদ্বীপের রাঙ্গালি দ্বীপে পানির নিচে অবস্থিত।

এখানেই তৈরি হচ্ছে বিশ্বের প্রথম অর্ধনিমজ্জিত জাদুঘর। সমুদ্র থেকে প্রায় ১৬ ফুট নিচে কনরাড মালদ্বীপ রাঙ্গালি আইল্যান্ড হোটেলের ভেতরে আছে কাচঘেরা একটি রেস্তোরাঁ। যেখানে বসে সামুদ্রিক প্রাণীদের চলাফেরা দেখা যায়। সমুদ্রের নিচে ১৮০ ডিগ্রি প্যানারমিক ভিউতে বসে রেস্টুরেন্টের খাবারের তালিকা অনুযায়ী মালদ্বীপের গলদা চিংড়ি আর পশ্চিমা খাবার খাওয়া যায়। এই হোটেলে এক রাত থাকতে খরচ করতে হয় প্রায় ৫০ হাজার ডলার, যা বাংলাদেশি টাকায় ৩৩ লাখের বেশি।

প্রসঙ্গত, গত জুন মাসে আংটিবদল সেরেছিলেন কাজল আগারওয়াল ও গৌতম কিসলু। প্রায় তিন বছর প্রেম করার পর গত ৩০ অক্টোবর ধুমধাম করে তাঁদের বিয়ে হয়।