সালমার দারুণ বোলিংয়ে নারী আইপিএলের শিরোপা ট্রেইলব্লেজার্সের4 মিনিটে পড়ুন

33

বগুড়া এক্সপ্রেস ডেস্ক

বল হাতে দারুণ নৈপুণ্য দেখালেন সালমা খাতুন। আর ব্যাটিংয়ে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিলেন স্মৃতি মান্ধানা। সোমবার রাতে নারী আইপিএলের ফাইনালে সুপারনোভাসকে ১৬ রানে হারিয়ে প্রথমবারের মতো শিরোপা জিতলো ট্রেইলব্লেজার্স।

আরব আমিরাতের শারজায় টসে জিতে প্রথমে বোলিং নেয় সুপারনোভা। ট্রেইলব্লেজার্সের উদ্বোধনী দুই ব্যাটার স্মৃতি মান্ধানা এবং দিয়ান্দ্রা ডটিন দেখেশুনে খেলতে থাকেন। ডটিন কিছুটা ধীরগতিতে খেললেও স্মৃতি মান্ধানা শুরু থেকে আক্রমণাতœক ব্যাটিংয়ে মন দেন। দুইজনের ৭১ রানের উদ্বোধনী জুটিতে ভালো শুরু পায় প্রথমবার ফাইনাল খেলা দলটি। ডটিনকে আউট করে সুপারনোভাসকে প্রথম সাফল্য এনে দেন পুনম যাদব। এরপর রিচা ঘোষকে সাথে নিয়েও আস্থার সাথে ব্যাটিং করতে থাকেন স্মৃতি।

এবারের টুর্নামেন্টে নিজের প্রথম অর্ধশতরানও তুলে নেন। দলীয় ১০১ রানের মাথায় শশীকলা সিরিবর্ধনের বলে আউট হওয়ার আগে ৪৯ বলে পাঁচ বাউন্ডারি ও তিন ছক্কায় ৬৮ রানের দারুণ ইনিংস খেলেন।

এরপর শুরু রাধা যাদব ম্যাজিক। চমৎকার বোলিং করে ট্রেইলব্লেজার্সের ইনিংসে ধ্বস নামান। তার বোলিং নৈপুণ্যে ট্রেইলব্লেজার্স স্লগ ওভারে তেমন রান করতে পারেনি। দলীয় ১৭ তম ওভারে ২টি উইকেট এবং ইনিংসের শেষ ওভারে ৩টি উইকেট নেন রাধা। শেষ বলে নাত্থাকান চ্যান্থামকে রানআউটও করেন রাধা। ট্রেইলব্লেজার্স শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১১৮ রান করতে সমর্থ হয়। সুপারনোভার রাধা যাদব মাত্র ১৬ রান দিয়ে নেন ৫ উইকেট।
১১৯ রানের টার্গেটে সুপারনোভাস ব্যাট করতে নেমে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে আগের ম্যাচের ম্যাচ সেরা ওপেনার চামারি আতাপাত্তুকে হারিয়ে বিপদে পড়ে যায়। আগের ম্যাচের হাফ সেঞ্চুরিয়ান আতাপাত্তু এদিন মাত্র ৬ রান করে ট্রেইলব্লেজার্সের সোফি ইকলস্টোনের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে বিদায় নেন।

এরপর জেমিমাহ রড্রিগেজ এবং তানিয়া ভাটিয়া দেখেশুনে ব্যাটিং করতে থাকেন। দলীয় ৩০ ও ৩৭ রানের মাথায় প্রথমে তানিয়া এবং পরে জেমিমাহকে তুলে নেন দীপ্তি শর্মা। এরপর অধিনায়ক হারমানপ্রীত কউর এবং শশীকলা সিরিবর্ধনে দলের হাল ধরেন। এই দুইজন চতুর্থ উইকেটে ৩৭ রানের জুটি গড়েন। এ দুইজনের ব্যাটিংয়ে যখন সুপারনোভাস শিরোপার স্বপ্ন দেখছিল, তখন সালমা ম্যাজিকে বদলে যায় সবকিছু। দলীয় ৭৪ রানের শশীকলাকে আউট করেন সালমা। এরপর ১৯তম ওভারে অনুজা পাতিলকে রানআউট করার বলে সুপারনোভার সেরা ব্যাটসম্যান হারমানপ্রীতকে বোল্ড করে সুপারনোভার জয়ের স্বপ্ন গুঁড়িয়ে দেন। পঞ্চম বলে পূজা ভাস্ত্রাকারকেও বিদায় করেন সালমা। সুপারনোভাস শেষ পর্যন্ত ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১০২ রান করলে ১৬ রানের জয় পেয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় ট্রেইলব্লেজার্স। হারমানপ্রীত ৩০ এবং শশীকলা ১৯ রান করেন।

সালমা খাতুন মাত্র ১৮ রান দিয়ে ৩ উইকেট শিকার করে ট্রেইলব্লেজার্সের শিরোপা জয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন। এছাড়া দীপ্তি শর্মা ২ উইকেট নেন। অসাধারণ ব্যাটিংয়ের জন্য প্লেয়ার অফ দ্য ফাইনাল হন ট্রেইলব্লেজার্সের অধিনায়ক স্মৃতি মান্দানা এবং পুরো টুর্নামেন্ট জুড়ে নান্দনিক বোলিং পারফরম্যান্সের জন্য প্লেয়ার অফ দ্য টুর্নামেন্ট হন সুপারনোভার রাধা যাদব।