সাংবাদিকের কাছে চাঁদারদাবী ও ভাংচুর ঘটনায় মামলার প্রধান আসামী সাগর পুলিশের হাতে গ্রেফতার3 মিনিটে পড়ুন

33

আব্দুর রহমান, স্টাফ রিপোর্টার : বগুড়া থেকে প্রকাশিত দৈনিক মুক্ত জমিন পত্রিকার মহাস্থান প্রতিনিধি সাংবাদিক সাখাওয়াতের ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান বাঘোপাড়ায় চাঁদার দাবিতে হামলা ভাংচুর মারপিটের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার প্রধান অভিযুক্ত সাগর (২৭) কে অদ্য মঙ্গলবার সদর থানার এস.আই বেদার উদ্দিন সঙ্গীয় ফোর্স সহ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে শহরের মগলিশপুর এলাকা থেকে গ্রেফতার করে কোর্টে প্রেরন করে।

মামলা সূত্রে প্রকাশ, বগুড়া থেকে প্রকাশিত দৈনিক মুক্ত জমিন পত্রিকার মহাস্থান প্রতিনিধি সদরের বালা কৈগাড়ী গ্রামের শহিদুল ইসলাম পুটু এর পুত্র প্রতিদিনের ন্যায় পেশাগত দায়িত্ব পালন শেষে তার ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান বাঘোপাড়া সরকার মার্কেটে ওয়েব পয়েন্ট আইটিতে ১১/১১/২০ তাং রাত অনুমান ৮ টা ৪৫ মিনিটের সময় কয়েকজন সন্ত্রাসী, চাঁদা বাজ কোন কিছু বুঝে উঠার আগেই আকস্মিক ভাবে হামলা চালিয়ে মারপিট করে।
গ্রেফতারকৃত আসামী মহিষবাথান মৃধা পাড়ার আব্দুল মোমিনের পুত্র সাগর একই গ্রামের রোস্তম আলীর পুত্র পলাতক আসামী আবু সাঈদ (২৫) বিবাদী সাগরের ফুফু বেগমের বাসার ভাড়াটিয়া আশিক (২০) সাকিল (২০) সহ অজ্ঞাত নামা সহ আরো ৬/৭ জন সন্ত্রাসীদল হাতে লাঠিশোঠা নিয়ে বেআইনী জন তায় দলবদ্ধ হয়ে অনাধিকার ভাবে জোর পূর্বক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে প্রবেশ করে সাখাওয়াতের নিকট দশ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করে। এসময় সাখাওয়াত কারন জিজ্ঞাস করলে বিবদীগণ তাকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ সহ এলোপাতারী ভাবে মারপিট করে অপহরন করে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে সাখাওয়াত বাধা দেওয়ার চেষ্ঠা করলে গ্রেফতারকৃত আসামী সাগর কম্পিউটারের মনিটর টেবিলের উপর হতে হাতে করে নিচে ফেলে। যার মূল্যে ৯ হাজার টাকা এবং কম্পিউটারের সি.পি.ইউ লাথি দিয়ে ভেঙ্গে ফেলে যার মূল্যে ২৭ হাজার টাকা, ৩ ও ৪ নং বিবাদী দোকানের ক্যাশ বাক্স থেকে ৬ হাজার টাকা চুরি করে নেয়। সাংবাদিক সাখাওয়াতের চিৎকারে আশপাশ হতে স্বাক্ষীগণ ছাড়াও আরো অনেকেই এগিয়ে আসলে বিবাদীরা খুন-জখমের হুমকি দিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। অপরদিকে প্রকৃত ঘটনা ধামা-চাপা দিতে সমাজের কিছু স্বার্থন্বেষী মহল কু-প্ররোচনায় ২ নং বিবাদীকে দিয়ে সাখাওয়াত হোসেনের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করে। বিষয়টি প্রশাসনের নজরে এলে বিবাদীগণকে খুজতে থাকে। ইতিমধ্যেই বিবাদীগণ গা ঢাকা দিয়ে পালিয়ে বেড়ায়। ১ নং আসামী সাগর গ্রেফতারের পর তাদের পিছনে থাকা বুদ্ধিদাতারা অবস্থা বুঝতে পেড়ে কেটে পরেছে। বিবাদীগণ এখন বুদ্ধিদাতাদেরকেই মামলা দায়ের হওয়ার কারণে দোষারোপ করছে। এদিকে অবিলম্ভে পলাতক আসামীদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে বলে বগুড়া সদর থানার ওসি (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ এ তথ্য নিশ্চিত করেন।