তাড়াশে কীটনাশক ঢেলে ৪-৫ লাখ টাকার মাছ নিধনের অভিযোগ3 মিনিটে পড়ুন

39

সিরাজগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ
সিরাজগঞ্জের তাড়াশে পুর্ব শত্রুতাকে কেন্দ্র করে রাতে অন্ধকারে প্রতিপক্ষের খালে কীটনাশক ঢেলে প্রায় ৪-৫ লাখ টাকার দেশীয় প্রজাতির মাছ নিধনের অভিযোগ উঠেছে।
বৃহস্পতিবার রাতের কোন এক সময়ে উপজেলার তাড়াশ সদর ইউনিয়নের বৃ-পাচান গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় গ্রামবাসীরা জানান , ওই গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে সজিব (৩২) ও মৃত. ইমান আলীর ছেলে আজিজুল ইসলাম (৩৫) তাড়াশ-মহিষলুটি আঞ্চলিক সড়কের বৃ-পাচান গ্রামের বিভিন্ন জমির মালিকের কাছে থেকে খাল ইজারা নিয়ে মাছ চাষ করেছিলেন।
এদিকে পাশাপাশি একই গ্রামের মৃত. আবুল মন্ডলের ছেলে আফজাল হোসেনও একই স্থানে কিছু জায়গায় সেও মাছ চাষ করছিলেন। যা নিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে শত্রুতার সৃষ্টি হয় ও মারপিটের ঘটনাও ঘটে।
এনিয়ে তাড়াশ সদর ইউনিয়ন পরিষদে গত ৪ নভেম্বর উভয়পক্ষের শালিশী বৈঠক হয়। যা নিয়ে অপর মৎস্যচাষী আফজাল হোসেন আরো ক্ষীপ্ত হয়ে ওঠে।
মৎস্য চাষী সজিব অভিযোগ করেন , সেই শত্রুতাকে কেন্দ্র করে রাতের কোন এক সময় আফজাল তাদের মাছ চাষ করা খালে কীটনাশক ফেলে দেয়। আর তাতেই খালে চাষ করা দেশীয় প্রজাতি ৪-৫ লাখ টাকা মুল্যের মাছ মরে ভেঁসে ওঠে।
ক্ষতিগ্রস্থ মৎস্যচাষী সজিব ও আজিজুল ইসলাম জানান , তারা ধার দেনা করে খাল ইজারা নিয়ে তারা মাছ চাষ করেছিলেন। বর্তমানে মাছ গুলো বিক্রির সময়ও এসে গেছে। কিন্ত শত্রুতা করে আমাদের মাছ মেরে সর্বশান্ত করে দিয়েছে আফজাল।
অপরদিকে খালে কীটনাশক দিয়ে মাছ মেরে ফেলা প্রসঙ্গে অভিযুক্ত আফজাল হোসেন কাছে জানতে চাইলে তিনি তা অস্বীকার করেন।
এদিকে এ ঘটনায় তাড়াশ সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. বাবুল শেখ শুক্রবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি জানান, ওই দুই মৎস্যচাষীর ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।
এ প্রসঙ্গে তাড়াশ থানার ওসি মো. ফজলে আশিক বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে ৷