শিবগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনা কে কেন্দ্র করে মারপিটের ঘটনায় মা ও ছেলে আহত3 মিনিটে পড়ুন

43

শিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ বগুড়ার শিবগঞ্জের আটমূল ইউনিয়নের কাটগারা চকপাড়া গ্রামে বাঁশ কাটাকে কেন্দ্র করে মারপিটের ঘটনায় মা ও ছেলে আহত হয়ে শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে থেকে চিকিৎসা নিয়েছেন। এব্যাপারে সঠিক আইনি সেবা পেতে ভুক্তভোগী হানু বেগম থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার বিকালে শিবগঞ্জ উপজেলার কাটগারা চকপাড়া গ্রামের প্রবাসী আব্দুল বারী ফকিরদের বাঁশঝাড়ে একই গ্রামের মৃতঃ আজহারের মেয়ে রেশমা(৩০) ও তার মা নুরজাহান(৫৫) জোরপূর্বক বাঁশ কাটতে আসলে আব্দুল বারীর নাবালক ছেলে হীরা(১০) বাধা দিলে ঘটনাস্থলেই স্বামী পরিত্যক্তা রেশমা ও তার মা নুরজাহান বেগম ক্ষিপ্ত হয়ে নাবালক হীরাকে মারপিট করে হীরা মাটিতে ফেলে দিয়ে রেশমা হীরার গলার উপরে পা তুলে দেয়। ছেলে হীরার চিৎকার চেঁচামেচি শুনে মা হানু বেগম তার ছেলেকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে তাকেও বেধড়ক মারপিট করে আহত করে। আহতের খবর পেয়ে হানু বেগমের ভাই ইউসুফ কাজী বোন ও ভাগিনাকে উদ্ধার করে শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী নুর মোহাম্মদ ও রাবেয়া বলেন, রেশমা ও তার মা নুরজাহান বিনা উস্কানিতে অন্যায়ভাবে মারপিট করে মা ও ছেলেকে আহত করেছে।

মারপিটে আহত নাবালক হীরা ও তার মা হানু বেগম বলেন, আমাদের বাঁশঝাড়ে অন্যায় ভাবে রেশমা ও তার মা নুরজাহান বাঁশ কাটতে আসলে আমরা বাধা দিলে তারা আমাদের দাঁ ও লাঠি দিয়ে মেরে আহত করে।

এদিকে রেশমা ও তার মা নুরজাহানের সাথে কথা বলতে বাড়িতে গেলে তাদেরকে বাড়িতে পাওয়া যায়নি। এসম বাড়িতে থাকা রেশমার ভাবী সুমির সাথে কথা বললে তিনি বলেন, ভুলবোঝাবুঝির কারণে এমন ঘটনা ঘটতে পারে।

আহত হানু বেগমের ভাই ইউসুফ কাজী বলেন, আমার বোন ও ভাগিনাকে অন্যায় ভাবে মারপিটের ঘটনায় প্রশাসনের কাছে এর সঠিক বিচার চাই।

মারপিটের ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতে শিবগঞ্জ থানার ডিউটি অফিসার এসআই আনোয়ারের নিকট একটি অভিযোগপত্র জমা দেওয়া হয়েছে।