বিয়ের দিন করোনায় আক্রান্ত কনে, তারপর যা হলো2 মিনিটে পড়ুন

38

বগুড়া এক্সপ্রেস ডেস্ক

‘ভালোবেসে সখী নিভৃতে যতনে আমার নামটি লিখো’। মাহামারীর আবহেই বিয়ের মৌসুম। ইতিউতি সানাই কিংবা ব্যান্ডের শব্দও শোনা যায়। করোনার ভ্রূকুটিকে বুড়ো আঙুল দেখিয়েই দিকে দিকে ভালবাসার জয়জয়কার। সামান্য অতিথির উপস্থিতিতেই বিয়ে করছেন অনেকে। কিন্তু বিয়ের ঠিক আগেই যদি কনের কোভিড পরীক্ষার ফল পজিটিভ আসে তাহলে? তাহলেও বিয়ে আটকাবে না। এমনটাই বুঝিয়ে দিল রাজস্থানের কেলওয়াড়া কোভিড সেন্টার।

নীল রঙের পিপিই কিট পরা বর। হাতে দস্তানা। মুখের সামনে ফেস শিল্ড। আর মাথায় পাগড়ি। কনের পরনের লাল বেশও ঢেকেছে পিপিই কিটের আড়ালে। তারও আদ্যোপান্ত ঢাকা সুরক্ষা কবচে। পুরোহিতের পরনে সাদা পিপিই কিট। তার ভিতর থেকেই অবিরত মন্ত্রোচারণ করে চলেছেন আর আগুনে ঘৃতাহুতি দিয়ে চলেছেন। এভাবেই করোনা আক্রান্ত কনের বিয়ে সম্পন্ন হল। ভারতীয় সংবাদ সংস্থা এএনআইয়ের পক্ষ থেকে পোস্ট করা হয়েছিল ভিডিওটি। মুহূর্তের মধ্যে যা ভাইরাল হয়ে যায়। মহামরী পরিস্থিতিতে বিশেষ এই শুভ পরিণয় দেখে মুগ্ধ হন অনেকে। তবে কেউ কেউ আবার সমালাচনাও করেছেন। নিন্দুকদের প্রশ্ন, প্রাণ আগে না বিয়ে আগে।

স্থানীয় চিকিৎসক ডা. সম্পত রাজ নগর, যিনি এই বিয়ের অন্যতম পৃষ্ঠপোষক ছিলেন জানিয়েছেন, সুরক্ষা বিধি মেনে এলাকার প্রশাসনের অনুমতি মেনে এই বিয়ে সারা হয়েছে। কনের তরফ থেকে শুধুমাত্র তার বাবাকে বিয়েতে শামিল হওয়ার অনুমতি দেয়া হয়েছিল। যাতে তিনি কন্যাদান করতে পারেন। সাথে আরো দুই জন প্রতিনিধি। যাঁদের মধ্যে একজন পুরোহিতকে সাহায্য করার জন্য, অন্যজন বিধির নানা সামগ্রী জোগাড় করে দেওয়ার জন্য। প্রত্যেককেই পিপিই কিট পরিয়ে ফেস শিল্ডের আবরণে ঢেকে তারপর বিয়েতে হাজির করা হয়।