বিজয় দিবসে বগুড়ায় ১০ বছর ধরে শয্যাশায়ী মায়ের জন্য উপহার3 মিনিটে পড়ুন

31

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে অনেক ত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত অামাদের স্বাধীন বাংলাদেশ। দেশ মায়ের জন্য জীবন উৎসর্গ করেছে বাঙলা মায়ের দামাল ছেলেরা। সময়ের পরিক্রমায় দেশ অনেক এগিয়েছে, কিন্তু মানবিক চেতনার অভাবে আজো মানুষ অসহায়। তেমনি ১০ বছর যাবৎ শয্যাশায়ী একজন মা “মাহমুদা বেগম”-এর জন্য অাজ (১৬ ডিসেম্বর) বিজয় দিবসের উপহার হুইল চেয়ারসহ খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দিল বগুড়ার দুটি মানবিক সাহায্য সংগঠন- জাহান অারা ও লুৎফর রহমান ফাউন্ডেশন এবং সেবা।

 

বগুড়া পৌরসভার অন্তর্গত বর্ধিত এলাকা ২১ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা ৭০ উর্ধ্ব বয়সী একজন মা মাহমুদা বেগম, স্বামী মৃত। শ্যামাবাড়িয়া পশ্চিম পাড়ায় ২কন্যা ও ১পুত্র সন্তান নিয়ে ছিল তাঁর সংসার। গত ২০১০ সালে হঠাৎ মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণজনিত কারণে প্যারালাইজড হয়ে তিনি শয্যাশায়ী। অসহায় মায়ের সময় কাটে বিছানায়, ইচ্ছে মতো কোথাও যাবার শক্তি নেই। পরিবারে নেমে অাসে অভাব অনটন। শয্যাশায়ী অসুস্থ মা মাহমুদা বেগমকে দেখার কেউ থাকে না, কন্যা মলি বেগম মায়ের দায়িত্ব নেন।

 

সংসার ও সন্তান সামলানোর পাশাপাশি মলি বেগম তার মা মাহমুদা বেগমের সেবাশুশ্রূষা করেন। এরমাঝে পরিবারে অাবারও নেমে অাসে গভীর অমানিশা, মলি বেগমের স্বামী মৃত্যুবরণ করেন। তারপর হতেই মলি বেগম ও তাঁর মা মাহমুদাকে নিয়ে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলছে সংসার, অভাব অনটন নিয়মিত বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। শয্যাশায়ী মা মাহমুদা বেগমের জন্য একটি হুইল চেয়ার সহায়তা প্রার্থনা করে চেষ্টা চালিয়েছেন অনেক। বিগত ১০ বছর স্থানীয় কাউন্সিলরসহ

গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গের নিকট অনেক চেষ্টা করেও একটি হুইল চেয়ারের ব্যবস্থা হয়নি।

এ খবর পৌছাঁয় বগুড়ার দুটি মানবিক সাহায্য সংগঠনের কাছে। সংবাদ প্রাপ্তি মাত্র অতিদ্রুত তারা উপহার নিয়ে হাজির হয় বিজয় দিবসে। বিজয় দিবসের মহান দিনে শয্যাশায়ী মায়ের জন্য হুইলচেয়ার উপহার দেয় “জাহান অারা ও লুৎফর রহমান ফাউন্ডেশন” এবং ১ মাসের খাদ্য (২৫ কেজি কাটারী চাউল, ডাল, তৈল ও লবন) উপহার প্রদান করে মানবিক সাহায্য সংগঠন “সেবা”।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সেবা’র উদ্যোক্তা ও বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক  মঞ্জুরুল আললম মোহন, “জাহান আরা ও লুৎফর রহমান ফাউন্ডেশন”-এর সভাপতি মাসুদার রহমান মাসুদ, আওয়ামী লীগ নেতা গোলাম রব্বানী, ফাউন্ডেশনের সংগঠক ও দৈনিক বাংলা ৭১-এর বগুড়া জেলা প্রতিনিধি এটিএম রাশেদুল ইসলাম, যুবনেতা আনন্দ চন্দ্র দাস, যুবনেতা সংগ্রাম দাস, ছাত্রনেতা মাহফুজার রহমান, মিল্লাতসহ প্রমুখ।