নারী ও শিশু হেল্পডেস্কের অব্যাহত কার্যক্রমের সফলতা এনেছে দুপচাঁচিয়া থানা পুলিশঃওসি হাসান আলী2 মিনিটে পড়ুন

34

উজ্জ্বল চক্র বর্ত্তী শিশির দুপচাঁচিয়া থেকেঃ
বিশ্ব মানবতার নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুচিন্তিত ও অকান্ত প্রচেষ্টায় বাংলাদেশ পুলিশ এর মহা পরিদর্শক(আইজিপি)ড: বেনজীর আহমেদ এর দিক নির্দেশনায় সারা বাংলাদেশে ন্যায় বগুড়া জেলার মানবিক বিজ্ঞ পুলিশ সুপার মহাদ্বয় আলী আশরাফ ভুঁঞার নেতৃর্ত্বে দুপচাঁচিয়া ও আদমদিঘী সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার কেএইচএম এরশাদ এর সহযোগিতায় দুপচাঁচিয়া থানার অফিসার ইনচার্জের তত্বাবধানে থানায় নারী ও শিশু হেল্পডেস্কের এর কার্যক্রম চলছে। নির্যাতিতা নারী,জোর করে বাল্য বিবাহর প্রতিবাদ করা অপ্রাপ্ত বয়স্ক নারী,জোর করে তালাক দেওয়া প্রতিবাদী নারী যারা থানার নারী ও শিশু হেল্পডেস্কের সকল ধরনের সহায়তা চেয়েছেন তারা প্রত্যেকে সুফল পেয়েছে বলে অফিসার ইনর্চাজ মোঃ হাছান আলী বিষয়টি নিশ্চিত করেন।গত ১লা জানুয়ারী /২০২০ ইং তারিখ থেকে ৩১ শে ডিসেম্বর পর্যন্ত নারী ও শিশু হেল্পডেস্কের ১ বৎসরের মামলা ,অভিযোগ ও নিষ্পত্তির পরিসংখ্যানে দেওয়া রইলো।

১/ধর্ষন মামলাঃ- মোট ৬টি,-মামলা চলমান, ২/অভিযোগঃ- মোট ৯২টি, জানুঃ-মাসে পারিবারিক অভিযোগ=১০টি,ফেব্রঃ-৭টি,মার্চঃ-৩টি,এপ্রিলেঃ-৩টি,মে-৫টি,জুনঃ-৪টি,জুলাইঃ-৮টি,আগষ্টঃ-১১টি,সেপ্টেম্বরঃ-১০টিঅক্টোবরঃ-১২টি,নভেম্বরঃ-৯টি ও ডিসেম্বরঃ-১০টি। পারিবারিক অভিযোগ নারী ও শিশু হেল্প ডেক্সের আওতায় গ্রহন করা হয়।এইসব অভিযোগ পর্যায়ক্রমে তা নিষ্পত্তিকরা হয়েছে বলে নারী ও শিশু হেল্পডেস্কের কর্মকর্তা এএসআই মোছাঃ নুরতাজ খাতুন জানান। এবিষয়ে দুপচাঁচিয়া ও আদমদিঘী সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপারের সংগে মুঠোফোনে কথা বললে তিনি জানান, যে সকল অভিযোগ নারী ও শিশু হেল্পডেস্কের সহায়তায় নিষ্পত্তি হয় ,নিষ্পত্তি হওয়া অভিযোগ পরবর্তিতে ফলোআপ এর মাধ্যমে নির্যাতিতা নারী, শিশু,বয়স্ক ও প্রতিবন্ধী নারী কি অবস্থায় আছে সে বিষয়ে থানা প্রশাসন কিছুদিন পরপর খোজঁ খবর রাখেন।