যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্য প্রত্যাখ্যান বাংলাদেশের2 মিনিটে পড়ুন

35

বগুড়া এক্সপ্রেস ডেস্ক

বাংলাদেশ কে  নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইকেল আর পম্পেও’র বক্তব্যকে প্রত্যাখ্যান করেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। পাশাপাশি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, একজন সিনিয়র নেতার এমন মিথ্যা বক্তব্য অনাকাঙ্ক্ষিত ও গ্রহণযোগ্য নয়।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বুধবার (১৩ জানুয়ারি) রাতে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইকেল আর পম্পেও এক বিবৃতিতে বলেন, বাংলাদেশে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আল-কায়েদার অবস্থান রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এমন বক্তব্য বাংলাদশের নজর কেড়েছে। মাইকেল আর পম্পেও‘র এমন বক্তব্য মিথ্যা এবং তার মতো একজন সিনিয়র নেতার এমন মিথ্যা বক্তব্য অনাকাঙ্ক্ষিত এবং অগ্রহণযোগ্য। বাংলাদেশ তার বক্তব্যকে প্রত্যাখ্যান করছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, বাংলাদেশে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আল-কায়েদার কোনো অস্তিত্ব নাই এবং এমন কোনো প্রমাণও নেই যে বাংলাদেশে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আল-কায়েদা আছে।

সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সরকারের জিরো টলারেন্স নীতির কথা উল্লেখ করে মন্ত্রণালয় বিবৃতিতে বলছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশে কোনো প্রকার সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড সহ্য করা হয় না। চরমপন্থা, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের প্রতি বাংলাদেশের নীতিতে জিরো টলারেন্স অনেক আগেই থেকেই বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। পাশাপাশি এ ধরনের ঘটনা যেন দেশের অভ্যন্তরণে দানা বাঁধতে না পারে, সেজন্য যথাযথ পদক্ষেপও নেওয়া হয়েছে, যার প্রসংশা করেছে বিশ্ব।

সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বন্ধ করতে এরই মধ্যে বাংলাদেশ এই সংক্রান্ত বৈশ্বিক ফোরামে সক্রিয় ভূমিকা রাখছে উল্লেখ করে বিবৃতিতে বলা হয়, বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবিরোধী কনভেনশনের সক্রিয় সদস্য। বাংলাদেশের সঙ্গে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আল-কায়েদাকে জড়িয়ে যুক্তরাষ্ট্র যে বক্তব্য দিয়েছে, সে বিষয়ে কোনো প্রমাণ নেই এবং এই বক্তব্য অনভিপ্রেত।

বাংলাদেশের সঙ্গে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আল-কায়েদা রয়েছে, এমন বিষয়ে তথ্য-প্রমাণ দিতে পারলে বাংলাদেশ তা নির্মূলে পদক্ষেপ নেবে বলে উল্লেখ করেছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বাংলাদেশ প্রমাণভিত্তিক যেকোনো বক্তব্যকে সাধুবাদ জানায় বলেও বক্তব্য মন্ত্রণালয়ের।