বগুড়ার ধুনটে চার টি বাল্কহেড জব্দ,৭ জনের কারাদন্ড3 মিনিটে পড়ুন

31

এম.এ রাশেদ,স্টাফ রিপোর্টার,

বগুড়ার ধুনট উপজেলার ভান্ডারবাড়ী ইউনিয়নের যমুনার চর থেকে খননযন্ত্র দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের কাজে জড়িত থাকার অভিযোগে সাত জনকে গ্রেফতার করে ১৫ দিন করে কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। রবিবার সন্ধ্যায় উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট থানা– পুলিশের সহযোগিতায় এ অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে কারাদন্ড দেন। গ্রেফতারকৃতরা হলেন ধুনট উপজেলার রাধানগর গ্রামের সুজাত আলী (২৩), জেল হক (৩৫), বৈশাখী গ্রামের সুমন সরকার (৩২), পারলক্ষ্মীপুর গ্রামের মহাব্বত আলী (৩২), সিরাগঞ্জ জেলার তাড়াশ উপজেলার বিলসারা গ্রামের আলাউদ্দিন (৫০), টাঙ্গাই জেলার কালিহাতী উপজেলার গোহালিয়া গ্রামের ঠান্ডু মিয়া (৩৫) ও বেড়িপটল গ্রামের হোসেন আলী (২৫)।

জানাযায়, উপজেলা যুবলীগের ত্রাণবিষয়ক সম্পাদক বেলাল হোসেনের নেতৃত্বে¡ যমুনার চর এলাকায় দির্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন হচ্ছিল। তারা প্রতিদিন বাল্কহেড নৌকা দিয়ে বালু পরিবহন করে বিভিন্ন এলাকায় নিয়ে বালু বিক্রি করা করতো। বালু উত্তোলনের কারনে ভাঙ্গনের কবলে ফসলি জমি। এমন খবর পেয়ে রবিবার সন্ধ্যায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। ভ্রম্যমান আদালতের অভিযানে বালু পরিবহনের চারটি বাল্কহেড জব্দ ও বালু উত্তোলনের কাজে সম্পৃক্ত থাকায় ৭ জনকে গ্রেফতার করে ১৫ দিনের কারাদন্ড দেয় ভ্রাম্যমান আদালত।

ধুনট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সঞ্জয় কুমার মহন্ত বলেন, যমুনা নদীর চর কেটে বালু তোলার অভিযোগে চারটি বাল্কহেড জব্দ করা হয়েছে। বালু তোলার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে সাত জনকে গ্রেফতার করে ২০১০ সালের বালুমহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইনের ৪ (খ) ধারা অনুযায়ী ১৫ দিন করে কারাদন্ড দিয়ে থানা– পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে।

ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, কারাদন্ড প্রাপ্ত আসামিদের সোমবার সকালে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।