কোন ধাপে কারা পাবেন করোনার টিকা3 মিনিটে পড়ুন

33

অনলাইন ডেস্ক

ভারত সরকারের উপহার হিসেবে পাঠানো অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার ২০ লাখ ডোজ বাংলাদেশে বাংলাদেশে এসেছে। এছাড়া সোমবার (২৫ জানুয়ারি) ভারত থেকে কেনা টিকার প্রথম চালানের ৫০ লাখ ডোজ আসার কথা রয়েছে । এরপর ২৭ অথবা ২৮ জানুয়ারি রাজধানী ঢাকার একটি করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে আনুষ্ঠানিকভাবে পর্যবেক্ষণমূলক টিকাদান শুরু হবে।

এখন দেশে শুরু হয়েছে টিকাদান কর্মসূচির প্রস্তুতি। যদি টিকাদানের সঠিক দিনক্ষণ এখনও চূড়ান্ত হয়নি। তবে বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেছেন, ৮ ফেব্রুয়ারির দিকে টিকা দান কর্মসূচির উদ্বোধন করা হতে পারে।

খসড়া পরিকল্পনা অনুযায়ী তিন পর্যায়ের পাঁচটি ধাপে ১৩ কোটি ৮২ লাখ ৪৭ হাজার মানুষকে টিকার আওতায় আনা হবে। প্রথম পর্যায়ে দুই ধাপে ১ কোটি ৭২ লাখ ৮০ হাজার ৯৩৯ জনকে টিকা দেওয়া হবে। প্রথম পর্যায়ে দুই ধাপে ১ কোটি ৭২ লাখ ৮০ হাজার ৯৩৯ জনকে টিকা প্রদান করা হবে।

যাদের দেওয়া হবে এরা হলেন-কোভিড চিকিৎসা সরাসরি যুক্ত সরকারি-বেসরকারি স্বাস্থ্যকর্মী মুক্তিযোদ্ধা, জনপ্রতিনিধি, বিভিন্ন বাহিনীর সদস্য, সরকারি কর্মকর্তা গণমাধ্যমকর্মী, ধর্মীয় নেতা প্রবাসী শ্রমিকও ষাটোর্ধ্ব নাগরিকসহ অন্যান্যদের এই টিকা প্রদান করা হবে।

দ্বিতীয় পর্যায়ে এক ধাপে ১ কোটি ৭২ লাখ ৮০ হাজার মানুষকে এই টিকা প্রদান করা হবে।

পঞ্চান্নোর্ধ্ব নাগরিক, শিক্ষক-শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কর্মী, দুর্গম এলাকায় বসবাসকারী, আদিবাসী, গণপরিবহন কর্মী, পোশাক শ্রমিক, হোটেল রেস্তোরাঁ, ওষুধের দোকানের কর্মীসহ অন্যান্যদের করোনার টিকা প্রদান করা হবে।

তৃতীয় পর্যায়ে দুই ধাপে ১০ কোটি ৩৬ লাখ ৮৪ হাজার মানুষকে টিকা প্রদান করা হবে। অনুমোদনের সাপেক্ষে প্রসূতি, রফতানি ও শিল্প প্রতিষ্ঠানের কর্মী, বেসরকারি বিদ্যুৎকেন্দ্র ও বন্দর কর্মী, কয়েদি ও জেলখানার কর্মী, ভাসমান ও গৃহহীন, বাদপড়া যুব জনগোষ্ঠী, শিশু ও স্কুলগামী শিক্ষার্থীসহ অন্যান্যদের এই টিকা দেওয়া হবে।

ভ্যাকসিন যেভাবে পাওয়া যাবে-

** নিবন্ধিত ব্যক্তিদের নির্ধারিত কেন্দ্রে নির্দিষ্ট দিনে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে।

** নিবন্ধনের জন্য বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হবে।

কোভিড ১৯ ভ্যাকসিন নেয়ার পর করণীয়

** কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন একটি নিরাপদ ভ্যাকসিন। তবে ভ্যাকসিন নেয়া পরে কারো কারো ক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরনের শারীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে্ যেমন-ভ্যাকসিন প্রয়োগের জায়গায় ফুলে যাওয়া, সামান্য জ্বর হওয়া, বমি বমি ভাব, মাথা ও শরীর ব্যথা। এ লক্ষণগুলো সাধারণত দুই-একদিন থাকতে পারে।

** ভ্যাকসিন নেয়ার পর যে কোনো শারীরিক সমস্যা দেখা দিলে দুই-একদিন থাকতে পারে।

** ভ্যাকসিন নেয়ার পর টিকা কেন্দ্রে ৩০ মিনিট অপেক্ষা করুন।

** ভ্যাকসিন নেয়ার পরেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্বাভাবিক জীবন-যাপন করুন।