শেরপুরে পুলিশ কর্মকর্তার সাথে মিথ্যা বন্ধুত্বের গুজব রটিয়ে ফসলি জমি ভরাট2 মিনিটে পড়ুন

72

 

মোঃ জাকির হোসেন
শেরপুর(বগুড়া) প্রতিনিধি

বগুড়ার শেরপুরের ভবানীপুর জামতলা এলাকায় শ্রেনী পরিবর্তন না করেই ফসলি জমি ভরাট করছে ছলেমান হাজি নামের এক প্রভাবশালী। বগুড়া জেলা পুলিশের উর্ধতন এক কর্মকর্তার বন্ধু বলে গুজব রটিয়ে এলাকাবাসিকে ভয়ের মধ্যে রাখার অভিযোগও উঠেছে তার বিরুদ্ধে।
জানা যায়, সিরাজগঞ্জ জেলার রায়গঞ্জ উপজেলার চান্দাইকোনা পাবনা বাজার এলাকার প্রভাবশালী ছলেমান হাজি নামের এক ব্যাক্তি সরকারি আইন উপেক্ষা করে বগুড়া জেলার শেরপুর উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের রনক স্পিনিং মিলের পাশের্^ জামতলা এলাকায় ফসলি জমি ভরাট করছে। শেরপুর উপজেলার কোন জায়গা থেকে মাটি না এনে কৌশলে রাজগঞ্জ উপজেলা থেকে ট্রাকে করে মাটি এনে ফসলি জমি ভরাট করে কৃষি সম্ভাবনাকে নষ্ট করছে। জমির শ্রেনী পরিবর্তন না করে এবং অতিরিক্ত পুরিশ সুপার (শেরপুর সার্কেল) মো. গাজিউর রহমানের বন্ধু পরিচয় দিয়ে তিনি এ ধরনের কাজ করছেন বলেও অভিযোগ উঠেছে।
এ ব্যাপারে প্রভাবশালী ছলেমান হাজির সাথে ফোনে (০১৭৪০-৯৫২২৬২) যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, আমার জমি আমি ভরাট করে ইন্ডাস্ট্রি করছি। তাছাড়া ভবানীপুর ইউনিয়ন ভূমি অফিসে আবেদন দিয়েছি। এখানে আমিতো কোন সমস্যা দেখছিনা। আপনাদের এএসপি আমার বন্ধু আপনাদের যা করার করেন।এ ব্যাপারে ভবানীপুর ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান জানান, আমার এখানে জমি শ্রেনী পরিবর্তনের আবেদন নেয়া হয়না। আর জমি ভরাট করার কোন খবরও আমি জানিনা। প্রভাবশালীর বন্ধু হওযার বিষয়টি জানতে চাইলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শেরপুর সার্কেল) মো. গাজিউর রহামন বলেন, ওই এলাকায় ছলেমান হাজি নামে আমার কোন বন্ধু নেই।
এ প্রসঙ্গে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোছা. সাবরিনা শারমীন বলেন, ফসলি জমি ভরাট ও পুকুর খনন আইনত দন্ডনীয়। এ ধরনেরকাজ যদি কেউ করে তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।