১২বছরে ঈদগাঁ মাঠে’র হিসাব না দেয়ায় গাবতলীতে সাবেক সভাপতির বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠেছে মুসুল্লীরা3 মিনিটে পড়ুন

170

মুহাম্মাদ আবু মুসা

বগুড়া গাবতলীর মহিষাবান কেন্দ্রীয় ঈদগা মাঠ এর সদ্য সাবেক সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার (ডিপ্লোমা) আবুল কালাম আজাদ দীর্ঘ ১২বছর যাবৎ ঈদগা মাঠ এর আয়-ব্যয়ের হিসাব না দেয়ায় তার বিরুদ্ধে ফুসে উঠেছে মুসুল্লীরা। তার (কালাম) কাছে বার বার হিসাব চেয়ে মুসুল্লীরা ব্যর্থ হয়ে গত ২১মে/২১ সভা ডেকে ঈদগা মাঠ কমিটি ভেঙ্গে দিয়ে ১২১সদস্য বিশিষ্ঠ নতুন কমিটি গঠন করেছে। এমনকি আয়-ব্যয়ের হিসাব দেয়ার দাবীতে তার (কালাম) বিরুদ্ধে গত ১১জুন/২১ এলাকাবাসি ও মুসুল্লীরা স্থানীয় মাদ্রাসায় প্রতিবাদ সভাও করেছে। প্রতিবাদ সভায় সভাপতিত্ব করেন ঈদগা মাঠ কমিটির নব-নিযুক্ত সভাপতি ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ¦ আমিনুল ইসলাম। সভায় বক্তব্য রাখেন অত্র এলাকার ইউপি সাবেক চেয়ারম্যান মোতাহার হোসেন মন্ডল, মহিষাবান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম মোল্লা, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু হাসান, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ-সভাপতি জাহিদুল ইসলাম, স্থানীয় ইউপি মেম্বার শাহজাহান আলী, গন্যমান্যদের মধ্যে আলহাজ¦ আব্দুল কুদ্দুস, ডাঃ আব্দুর রাজ্জাক, ইট ভাটা ব্যবসায়ী আবুল কালাম আজাদ, আশরাফুল ইসলাম রুবেল, আব্দুস শুকরা। এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও ঈদগা মাঠের মুসুল্লীগণ। প্রতিবাদ সভায় বক্তগণ বলেন, মহিষাবান কেন্দ্রীয় ঈদগা মাঠে এক সঙ্গে প্রায় ৭/৮ হাজার মানুষের জমায়েত হয়। এমনিভাবে ধর্মপ্রাণ মুসুল্লীরা এই ঈদগা মাঠে প্রাণ খুলে দান খয়রাত করে থাকেন। দীর্ঘ প্রায় ১২বছর যাবৎ হলে এলাকার ইঞ্জিনিয়ার (ডিপ্লোমা) আবুল কালাম আজাদ ঈদগা মাঠের সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসলেও কোন প্রকার আয় ব্যয়ের হিসাব দেয়নি। প্রায় ১২বছরে ঈদগা মাঠের ২০/২২লাখ টাকা আয় হতে পারে। সময় থাকতে ঈদগা মাঠের মুসুল্লীগণকে হিসাব বুঝে না দিলে আবুল কালাম আজাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। যে কারনে মহিষাবান কেন্দ্রীয় ঈদগা মাঠের ২০/২২লাখ টাকা আত্নসাৎ করার অভিযোগ এনে সদ্য সাবেক সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার (ডিপ্লোমা) আবুল কালাম আজাদসহ কয়েক জনের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার পথে হাটছেন এলাকাবাসি ও ঈদগা মাঠের মুসুল্লীরা। এ বিষয়ে ঈদগা মাঠ কমিটির নব-নিযুক্ত সভাপতি ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ¦ আমিনুল ইসলাম জানান, আমি নিজেও ইঞ্জিনিয়ার (ডিপ্লোমা) আবুল কালাম আজাদ এর সাথে কথা বলেছি ঈদগা মাঠের হিসাব দেয়ার জন্য। তিনি আয় ব্যয়ের হিসাব না দিলে মাঠের মুসুল্লীরা অবশ্যই তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেবেন। এ ব্যাপারে মহিষাবান কেন্দ্রীয় ঈদগা মাঠ এর সদ্য সাবেক সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার (ডিপ্লোমা) আবুল কালাম আজাদ এর সাথে মোবাইল ফোনে কথা বললে তিনি তার বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।