কাহালুতে চোর সন্দেহে যুবকের পায়ে পেরেক ঢুকিয়ে মধ্যযুগয়ী নির্যাতন!2 মিনিটে পড়ুন

108

অনলাইন ডেস্ক
বগুড়ার কাহালুতে আতাইর রহমান শিরু (২৪) নামের এক যুবককে চোর সন্দেহে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে পায়ে পেরেক এবং সুই ঢুকিয়ে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। নির্যাতনের ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়।

বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) রাতে এ ঘটনায় শিরুর বাবা মজনু সোনার বাদী হয়ে পাঁচজনের নামে মামলা করেছেন।

এর আগে বুধবার (১৬ জুন) গভীর রাতে কাহালু উপজেলার অহর মালঞ্চা গ্রামে আতাইর রহমান শিরুকে ঘুম থেকে ডেকে তুলে নিয়ে গিয়ে এ নির্যাতন চালানো হয়।

শিরুর বাবা মজনু সোনার বলেন, বুধবার গভীর রাতে শিরুকে ঘুম থেকে তুলে নিয়ে যান একই গ্রামের সেলিনা, আছিয়াসহ তার পরিবারের পাঁচ থেকে ছয়জন নারী-পুরুষ। পরে তাকে সেলিনার বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাকে গ্যাস সিলিন্ডার চুরির অভিযোগে প্রথমে হাত-পা বেঁধে মারধর করা হয়। পরে শিরুর আঙুলে সুই ও বাম পায়ে হাতুড়ি দিয়ে লোহার পেরেক ঢুকিয়ে দেয়া হয়। পরদিন বৃহস্পতিবার সকালে কাহালু থানা পুলিশ শিরুকে অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করায়।

এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া তিন মিনিট ছয় সেকেন্ডের ভিডিও চিত্রে দেখা গেছে, লাঠি হাতে একব্যক্তি চোর সন্দেহে আতাউর রহমান শিরুর দুই পা বেঁধে নির্যাতন করছেন। আর চারপাশে স্থানীয় লোকজন তা দেখছে। ভিডিওটি প্রকাশ হওয়ার পর ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা শুরু হলেও পুলিশ অভিযুক্তদের গ্রেফতার করতে পারেনি।

এ বিষয়ে কাহালু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমবার হোসেন বলেন, নির্যাতনকারীদের গ্রেফতার করতে পুলিশ অভিযান শুরু করেছে।