শেরপুরে প্রতিবন্ধী সন্তানের ভারে ক্লান্ত মা, আকুতি একটি হুইল চেয়ারের2 মিনিটে পড়ুন

179

মোঃ জাকির হোসেন:শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি

বগুড়ার শেরপুর উপজেলার সুঘাট ইউনিয়নের চক কল্যানী গ্রামের শাহাদত হোসেনের ঘরে জন্ম নেয় প্রতিবন্ধী সাঈম হোসেন। না পরে কথা বলতে না পারে চলাফেরা করতে। জন্ম নেয়ার তিন বছর পরেই তার মা শেফালী আরেকটি সন্তান জন্ম দেওয়াার সময় মারা যায়। নিরুপায় হয়ে প্রতিবন্ধী ছেলেকে লালন পালন করার জন্য শাহাদাত হোসেন আবারো বিয়ে করেন শিল্পী খাতুনকে। দীর্ঘ ১০ বছর যাবত প্রতিবন্ধী ছেলে সাঈম হোসেনকে লালন-পালন করছেন। সম্প্রতি তাঁর ঘরেও একটি সন্তান জন্ম নিয়েছে। একদিকে শিশু সন্তান অপরদিকে প্রতিবন্ধীর সাঈম। এদিকে, দেখতে দেখতে প্রতিবন্ধী সাঈমের বয়স ১৩তে পড়েছে। বয়সের সাথে সাথে সাঈমের ওজন বেড়ে যাওয়ায় তাকে কোলে নিয়ে এদিক সেদিক যাওয়া দুষ্কর হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই হতদরিদ্র পরিবারটি প্রশাসন ও বিত্তবানদের কাছে একটি হুইল চেয়ারের জন্য আকুতি জানিয়েছেন।
অভাবের সংসারে দিন এনে দিন খাওয়া স্বামীর আয়ের উপর নির্ভর করেই চলে তাদের সংসার। সন্তানের জন্যও হুইলচেয়ার কেনার আশা নিরাশায় পর্যবসিত হয়।

এ ব্যাপারে প্রতিবন্ধী সাঈমের সৎ মা শিল্পী খাতুন জানান, সাঈমের শরীর অচল হওয়ায় তাকে বেশিরভাগ সময় বিছানা অথবা দোলনাতে শুইয়ে রাখা হয়। আর এ কারণে তার শরীরের পাশাপাশি মনের বিকাশও ঘটছে না। তাই কোন সহৃয় ব্যাক্তি বা প্রশাসনের কেউ যদি একটি হুইল চেয়ার দান করত তাহলে আমার প্রতিবন্ধী ছেলেকে নিয়ে একটু চলাচল করতে পারতাম।