শিবগঞ্জে প্রধানমন্ত্রীর উপহার ৭৩ টি গৃহহীন পরিবারের মাঝে জমির দলিল ও বাড়ি হস্তান্তর3 মিনিটে পড়ুন

55

রশিদুর রহমান রানা : শিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ “বাংলাদেশের একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না” এই স্লোগানকে সামনে রেখে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে সকল গৃহহীন ও ভূমিহীনদের মাঝে পুনর্বাসন কার্মসূচীর আওতায় ঘর হস্তান্তর কর্মসূচী উপলক্ষে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুক্ত হয়ে আশ্রয়ন প্রকল্প-২ এর আওতায় সারাদেশের ন্যায় শিবগঞ্জে ২য় ধাপে ৭৩টি পরিবারের মাঝে ঘর হস্তান্তর এর শুভ উদ্বোধন করেন। রবিবার সকাল সাড়ে ১০ টায় উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে গৃহহীন পরিবারের মাঝে জমির দলিল ও বাড়ি হস্তান্তরের শুভ উদ্বোধন করেন।এসময় শিবগঞ্জ উপজেলা সভাকক্ষে উপস্থিত ছিলেন, শিবগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমেদ রিজু, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে কুলসুম সম্পা, শিবগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মৌলী মন্ডল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রিজ্জাকুল ইসলাম রাজু, শিবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আজিজুল হক, উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজার রহমান মোস্তা, শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ সিরাজুল ইসলাম, শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ তারকনাথ কুন্ডু, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা জাফরিন সুলতানা, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আল মুজাহিদ সরকার, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জিন্দার আলী, উপজেলা নির্বাহী প্রকৌশলী সিহাদুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আনিছুর রহমান, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মিজানুর রহমান খান, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা নাহিদা সুলতানা, উপজেলা প্রোগ্রামার মাহফুজুর রহমান, আনছার ভিডিপি কর্মকর্তা মনজুর, , ইউপি চেয়ারম্যান মহিদুল ইসলাম, মোজাফফর হোসেন, শফিকুল ইসলাম শফিক, আব্দুল হাই প্রধান, শফিকুল ইসলাম শফি প্রমূখ। উক্ত কর্মসূচীতে উপজেলায় প্রথম ধাপে ১৮০টি গৃহহীন পরিবারের মাঝে ঘর হস্তান্তর করা হয়েছিল। চলমান কার্যক্রমের দ্বিতীয় ধাপে ৭৩টি গৃহহীন পরিবারের মাঝে ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে। এর মধ্যে বিহার ইউনিয়নে ৩৫টি, কিচক ইউনিয়নে ৫টি ও আটমূল ইউনিয়নে ৩৩টি ঘর প্রদান করা হয়। প্রতিটি ঘর একই আদলে নির্মাণ করা হচ্ছে । যেখান দুইটি শয়ন কক্ষ, একটি টয়লেট, রান্নাঘর, কমনস্পেস ও একটি বারান্দা থাকবে। প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন বাস্তবে রুপ নিচ্ছে এই গৃহহীনদের ঘর দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী বলেন, “যখন এই মানুষগুলো এই ঘরে থাকবে তখন আমার বাবা-মার আত্মা শান্তি পাবে। লাখো শহীদের আত্মা শান্তি পাবে। কারণ এসব দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটানোই তো ছিল বঙ্গবন্ধুর লক্ষ্য। ঘর পেয়ে গৃহহীনদের দুঃখ ঘুচবে এবং তাদের মাথা গোঁজার ঠিকানা পাবে তারা, ঘরহারাদের স্বপ্ন দেখাচ্ছেন তা বাস্তবায়ন করে ধাপে ধাপে সফল করতেছেন।