শাজাহানপুরে বার্মিজচাকু সহ ৪ ছিনতাইকারী গ্রেফতার4 মিনিটে পড়ুন

349

বগুড়ায় বার্মিজচাকু সহ ৪ ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করেছে শাহাজাহানপুর থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, শেরপুর উপজেলার জোয়ানপুর গ্রামের সাইফুল ইসলাম (৩৭), গোলাম মোস্তফা (২৩),নিজাম উদ্দিন (২০) ও মোহাম্মদ রাসেল (১৯)। গ্রেফতারে সময় পুলিশ তাদের কাছ থেকে ছিনতাইয়ের কাজে ব্যবহৃত দুইটি মোটরসাইকেল জব্দ ও দুইটি বার্মিজ টিপছোরা চাকু উদ্ধার করে। রোববার বিকেলে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করেন জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল ও মিডিয়া মুখপাত্র) ফয়সাল মাহমুদ।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, শনিবার লালমনিরহাট জেলা থেকে পোল্ট্রি মুরগী ব্যবসায়ী লিটন মিয়া (৪৬) তার ভাতিজা আসাদুল ও ড্রাইভার রকিব সহ পিকআপ ভ্যান নিয়ে শাজাহানপুরে কম দামে মুরগী কিনতে আসেন। রাত আনুমানিক সাড়ে ১০ টার সময় ঢাকা- রংপুর মহাসড়কের আড়িয়া পালপাড়া অভিমুখি কাঁচা রাস্তার উপর তারা আসলে প্রায় এক সপ্তাহ আগে মুরগী ক্রয়ের জন্য পরিচয় হওয়া সাইফুল ইসলাম (ছিনতাইকারী) ছদ্মনাম ফরহাদ ব্যবহার করে ভিকটিমকে গ্রহণ করে। এরপর সাইফুল ইসলাম সহ তার সহযোগী তিনজনকে নিয়ে দুইটি মটরসাইকেলে ব্যবসায়ী লিটনকে মুরগীর খামারে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে মহাসড়কের একশত গজ পূর্ব পার্শ্বে কলাবাগানে নিয়ে যায় এবং অন্ধকার স্থানে নিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে কিল, ঘুষি, লাথি মারে। ছিনতাইকারী সবাই বার্মিজ টিপ ছোরা হাতে নেয় এবং সাইফুল ব্যবসায়ী লিটনের গলায় বার্মিজ টিপ ছোরা ধরে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে তার কাছে থাকা ২০ হাজার ৪ শত ৫০ টাকা ছিনিয়ে নেয়।

একপর্যায়ে চারজন ছিনতাইকারী ১২শত কেজি মুরগীর চুক্তি অনুযায়ী বাকি ১ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা দেয়ার চাপ সৃষ্টি করলে ব্যবসায়ী লিটন জানায় বাকি টাকা তার ভাতিজা আসাদুল এবং ড্রাইভার রকিবের কাছে আছে। তখন ছিনতাইকারীরা ব্যবসায়ীকে তার ভাতিজা এবং ড্রাইভারকে টাকা নিয়ে আসার জন্য ফোন দিতে বলে। তাদের কথা অনুযায়ী ব্যবসায়ী লিটন তাদেরকে ফোন দেয়।ফোন পেয়ে ব্যবসায়ীর ভাতিজা এবং ড্রাইভার ধারনা করে এখানে কোনো সমস্যা হয়েছে তাই তারা গাড়ি নিয়ে নিরাপদ অন্য জায়গায় চলে যায়। যখন ছিনতাইকারীরা দেখে ব্যবসায়ীর ভাতিজা এবং ড্রাইভারের আসতে দেরী হচ্ছে তখন সাইফুলের দুই সহযোগী মোটরসাইকেল যোগে মহাসড়কে গিয়ে পিকআপের খোজ করতে থাকে। দুই সহযোগী তাদের না পেয়ে সাইফুলকে জানায় তখন সাইফুল তাদের শেরপুর নিজ এলাকায় চলে যেতে বলে। সাইফুল নিজে এবং তার অপর একজন সহযোগীকে দিয়ে মোটরসাইকেলে মাঝে ব্যবসায়ীকে বসিয়ে তার পেটে বার্মিজ ছোরা ধরে ডেমাজানি হয়ে শেরপুরের দিকে অপহরণ করে নিয়ে যেতে থাকে। ওই সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শাজাহানুর থানা পুলিশ বিষয়টি জানতে পেরে তৎক্ষনাৎ অভিযানে ব্যবসায়ীকে লিটনকে উদ্ধার করে ও ছিনতাইকারী সাইফুল সহ তার সহযোগীকে স্থানীয়দের সহায়তায় গ্রেফতার করে পুলিশ। পরবর্তীতে গ্রেফতারকৃতদের দেয়া তথ্য মতে অপর দুইজন ছিনতাইকারীকে শেরপুর থানা এলাকায় অভিযানে গ্রেফতার করে ছিনতাই হওয়া ২০ হাজার টাকাও উদ্ধার করা হয়।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফয়সাল মাহমুদ জানান, আমরা দ্রুত সময় ভিকটিম ও ছিনতাই হওয়া টাকা উদ্ধারে সক্ষম হয়েছি। পাশাপাশি জড়িত সকল ছিনতাইকারীকেও গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে প্রচলিত আইনে শাহাজাহানপুর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।