চাপে পড়ে আস্থা ভোটের ঘোষণা মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রীর2 মিনিটে পড়ুন

154

অনলাইন ডেস্ক
হঠাৎ করে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে মালয়েশিয়ার রাজনৈতিক অঙ্গন। দেশটির প্রধানমন্ত্রী মুহিউদ্দীন ইয়াসিনের পদত্যাগের দাবিতে এক জোট হয়েছে মালয়েশিয়ার বিরোধী রাজনীতিকরা। অবশেষে চাপে পড়ে পার্লামেন্টে আস্থা ভোট আয়োজনের ঘোষণা দিয়েছেন মুহিউদ্দীন। বুধবার এক টেলিভিশন ভাষণে তিনি এ ঘোষণা দেন। খবর রয়টার্সের।

নিজের প্রধানমন্ত্রিত্বের পদ প্রশ্নের মুখে পড়েছে বলে স্বীকার করেছেন মুহিউদ্দীন। তবে মালয়েশিয়ার অধিকাংশ আইনপ্রণেতার সমর্থন তার রয়েছে বলেও জানান তিনি। মুহিউদ্দীন বলেন, সম্প্রতি আমার প্রধানমন্ত্রিত্ব নিয়ে কিছু প্রশ্ন দেখা দিয়েছে এবং এ সম্পর্কে আমি সচেতন। এ কারণে আমি মহামান্য রাজাকে বলেছি, উদ্ভূত পরিস্থিতিতে দেশের সংবিধান ও আইন মেনে দেওয়ান রাকইয়াতে আস্থা ভোট হওয়া প্রয়োজন।

মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী বলেন, আগামী সেপ্টেম্বর মাসে পার্লামেন্ট অধিবেশন শুরু হলে এই আস্থা ভোটের আয়োজন করা হবে। এটি আমার রাজনৈতিক জীবনের একটি বড় চ্যালেঞ্জ এবং আমি তা মেনে নিচ্ছি। কারণ দেওয়ান রাকইয়াতের অধিকাংশ আইনপ্রণেতার আমার প্রতি সমর্থন রয়েছে।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাস মাহামরি মোকাবেলায় ব্যর্থতা, স্বেচ্ছাচারিতা, মহামারি পরিস্থিতিতে অর্থনীতি পুনর্গঠনে সঠিক নির্দেশনার অভাব এবং অযৌক্তিকভাবে দেশজুড়ে জরুরি অবস্থা জারির অভিযোগে মুহিউদ্দীনের পদত্যাগের দাবিতে মালয়েশিয়াজুড়ে বিক্ষোভ চলছে।

সম্প্রতি মালয়েশিয়ার বর্তমান রাজা সুলতান আব্দুল্লাহ সুলতান আহমাদ শাহের ভর্ৎসনার শিকার হন মুহিউদ্দীন। দেশে জরুরি অবস্থা জারির বিষয়ে মুহিউদ্দীন তাকে ভুল পরামর্শ দিয়েছিলেন এমনটাই অভিযোগ করেন তিনি। মালয়েশিয়ার কোনও প্রধানমন্ত্রীকে রাজার ভর্ৎসনার ঘটনা দেশটির রাজনীতির ইতিহাসে বিরল।