“ডোপ টেষ্টের নামে” শিক্ষার্থীদের হয়রাণি না করার দাবি ছাত্র ইউনিয়ন বগুড়ার2 মিনিটে পড়ুন

48

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের জারীকৃত স্মারক নং ৩৭,০০,০০০০,১০১,৯৯০৩০,২১,১৪১৩৮/১১ তারিখ ২৯/৮/২১ এবং শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের স্মারক নং ৩৭,০০,০০০০,০৬৫,১৬,১১৯,১৮,২৭০ এ গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুযায়ি সকল ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীর ডোপ টেষ্টে বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। মাদকের ভয়াবহতা রোধে কোন প্রকার আগাম ঘোষণা, সু-বন্দোবস্ত ও পূর্বপ্রস্ততি ব্যতীত ডোপ টেষ্ট বাধ্যতামূলক করাটা শিক্ষার্থীদের জন্য হয়রানী এবং আর্থিক ক্ষতির কারণ হিসেবে দেখা দিয়েছে। বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন বগুড়া জেলা সংসদ এই হয়রাণীর প্রতিবাদ জানাচ্ছে।
এক যুক্ত বিবৃতিতে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন বগুড়া জেলা সংসদের সভাপতি মোঃ সাদ্দাম হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ সোহানুর রহমান সোহান বলেন, “করোনা মহামারীর সময় মানুষের আর্থিক অবস্থা এমনিতেই নিম্নগামী। এই রকম এক সময় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ডোপ টেষ্ট করানো বাধ্যতামূলক করার মাধ্যমে পুণরায় ছাত্র-ছাত্রীদের পকেট কাটার ব্যবস্থা করেছে। বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় ডোপ টেষ্টের সুব্যবস্থা নেই, সেইসব জায়গায় শিক্ষার্থীরা বিপাকে পড়ছে এবং এর সুযোগ নিয়ে একটি অসাধু সিন্ডিকেট ছাত্র-ছাত্রীদের কাছ থেকে চড়া মূল্যে ডোপ টেষ্টের ব্যবস্থা করছে। যা ছাত্র-ছাত্রীদের উপর মরার উপর খরার ঘা হিসেবে পরিনত হয়েছে। সাধারণ শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, মাদক সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে না পেরে সাধারণ শিক্ষার্থীদের হয়রাণি করার জন্যই মূলত সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।”

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, “যদি ডোপ টেষ্ট করতেই হয় তাহলে তা সম্পূর্ণ সরকারি ব্যবস্থাপনায় বিনামূল্যে করার ব্যবস্থা করতে হবে।”
নেতৃবৃন্দ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অতিদ্রুত এ বিষয়ে পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানান।