শিবগঞ্জে বিয়ে দেয়ার প্রলোভনে কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে ঘটক গ্রেফতার2 মিনিটে পড়ুন

92

ডেস্ক রিপোর্ট : বগুড়ার শিবগঞ্জে এক কলেজ ছাত্রীকে বিয়ে দেয়ার কথা বলে জোরপূর্বক অপহরণ করে নিয়ে গিয়ে তিনদিন ধরে আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে শাহিনুর (৪৩) নামে এক ঘটকের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় শনিবার রাতে শিবগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন ধর্ষণের শিকার ওই কলেজ ছাত্রীর পিতা। পুলিশ অভিযোগ পেয়ে শনিবার রাতেই উপজেলার রহবল এলাকা থেকে কথিত ঘটক ধর্ষক শাহীনুরকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃত শাহিনুর একই উপজেলার রায়নগর ইউনিয়নের করতকোলা গ্রামের মৃত মোবারক প্রামাণিকের ছেলে।

থানায় দায়েরকৃত মামলা সূত্রে জানা গেছে, মোকামতলা মহিলা কলেজের একাদশ শ্রেণির এক ছাত্রীকে ভাল পাত্রের সাথে বিয়ে দেয়ার কথা জানায় ওই ছাত্রীর পিতাকে। এতে সম্মত হয় ওই কলেজ ছাত্রীর পরিবার। এ সূত্র ধরে ওই পরিবারে যাতায়াত শুরু করে লম্পট ঘটক শাহিনুর। এক পর্যায়ে গত ১৩ অক্টোবর কলেজ থেকে আসার পথে পাত্র দেখানোর কথা বলে কৌশলে ওই তরুনীকে একটি সিএনজি যোগে অপহরণ করে নিয়ে যায়। রহবল এলাকায় এক বাড়িতে তাঁকে তিনদিন আটকে রেখে জোরপূর্বক একাধিকবার ধর্ষণ করে। শনিবার রাতে ওই ছাত্রীর পিতাসহ পরিবারের লোকজন খবর পেয়ে রহবল এলাকার উক্ত বাড়িতে গিয়ে লম্পট ঘটক শাহিনুরকে আটক করে ৯৯৯ এ কল করে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে অভিযুক্ত ঘটক ধর্ষককে গ্রেফতার করে এবং ভিকটিমকে উদ্ধার করে।

শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মোঃ সিরাজুল ইসলাম জানান, অভিযোগ পেয়ে অভিযুক্ত অপহরণকারী ধর্ষককে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তিনি আরও জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্ত শাহীনুর ওই তরুনীকে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে।