দুপচাঁচিয়ায় ৪র্থ শ্রেনীর ছাত্রীকে গণধর্ষনের অভিযোগে ৩ জন গ্রেফতার3 মিনিটে পড়ুন

20

দুপচাঁচিয়া(বগুড়া) প্রতিনিধিঃ
দুপচাঁচিয়া থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে গণধর্ষনের অভিযোগে তিন ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন উপজেলার তালোড়া পৌরসভার সরঞ্জাবাড়ী মহল্লার নাসির উদ্দিনের ছেলে পান্না(৩৫), মৃত ইব্রাহীম আলীর ছেলে ফেরদৌস(৫০) ও মৃত সিরাজ মন্ডলের ছেলে দুদু(৪০)। গত ২১সেপ্টেম্বর দিবাগত রাতে নিজ নিজ বাড়ি হতে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। এ ঘটনায় ভিকটিমের মা বাদী হয়ে গত ২১সেপ্টেম্বর রাতে দুপচাঁচিয়া থানায় তিনজন সহ অজ্ঞাতনামা আরও তিনজনের নামে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, বাদীর স্বামী প্রায় ১০বছর আগে মারা যান। বর্তমানে স্থানীয় একটি হাফেজিয়া ক্বওমী মাদ্রাসার ৪র্থ শ্রেণিতে পড়–য়া তার ১৩বছরের মেয়েকে নিয়ে পৃথক বাড়িতে বসবাস করছেন। তিনি অন্যের বাড়িতে কাজ করে সংসার চালান। বাড়িতে তিনি না থাকার সুযোগে প্রতিবেশী পান্না, ফেরদৌস ও দুদু তার মেয়েকে বিভিন্ন সময়ে প্রলোভিত করে বিড়ি, সিরারেট ও গাঁজা সেবন করা শেখায় এবং যৌন কামনা হাসিলের জন্য পাঁয়তারা করতে থাকে। বিষয়টি তিনি জানতে পেরে তাদেরকে নিষেধ করলে উল্টো তারা তাকে ভয়ভীতি দেখায়। গত ২০ সেপ্টেম্বর রাত সাড়ে আটটার দিকে তার মেয়েকে বাড়িতে না দেখতে পেয়ে খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। ওইদিন গভীর রাতে তার মেয়ে বাড়িতে ফিরলে তাকে জিজ্ঞেস করে জানতে পারেন সরঞ্জাবাড়ী তিনমাথা মোড়ের পশ্চিমে একটি চাতালের গদি ঘরে পান্না ও ফেরদৌস তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেছে। শুধু তাই নয় গত ২/৩মাস যাবত বিভিন্ন সময়ে উক্ত তিনজন সহ অজ্ঞাত আরও ৩/৪জন তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেছে।
থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম আজাদ জানান, গ্রেপ্তারকৃত আসামীদের ২২সেপ্টম্বর বৃহস্পতিবার বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। মামলার মূল রহস্য উদঘাটনের স্বার্থে আসামীদের রিমান্ড চাওয়া হবে। একই সঙ্গে ভিকটিমকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগে প্রেরণ করা হয়েছে।