শারীরিক প্রতিবন্ধীদের সমালোচনায় অ্যান হ্যাথাওয়ের ক্ষমা প্রার্থনা

217

বগুড়া এক্সপ্রেস ডেস্ক

 

সাধারণ মানুষদের হাতে-পায়ে থাকে পাঁচটি করে আঙুল। কিন্তু ‘দ্য উইচেস’ ছবিতে দুষ্টু ও ভয়ানক এক ডাইনির ভূমিকায় হলিউড তারকা অ্যান হ্যাথাওয়ের দুই হাতে দেখা যায় তিনটি করে অস্বাভাবিক বড় আঙুল। এছাড়া পায়ে কোনও আঙুল নেই। এর মাধ্যমে শারীরিক প্রতিবন্ধীদের হেয় করা হয়েছে বলে দাবি অসংখ্য মানুষের। তাই সমালোচনার তীরে বিদ্ধ তিনি।

‘দ্য উইচেস’ ছবিতে ডাইনির ভূমিকায় অ্যান হ্যাথাওয়ে

অ্যান হ্যাথাওয়ে মানছেন, ‘দ্য উইচেস’ ছবিতে ডাইনি চরিত্রটি যেভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে তাতে অনেকে মনোক্ষুণ্ন। তাই বৃহস্পতিবার (৫ নভেম্বর) সোশ্যাল মিডিয়া ইনস্টাগ্রামে তিনি সবার কাছে ক্ষমা চেয়েছেন।

৩৭ বছর বয়সী এই আমেরিকান অভিনেত্রীর দাবি, ডাইনি চরিত্রটির শুটিং করার সময় শারীরিক প্রতিবন্ধীদের ব্যাপারটি একেবারেই মাথায় আসেনি তার। তিনি বলেন, ‘যদি সত্যিই বুঝতাম তাহলে কখনও এমন হতো না।’

 

অস্কারজয়ী অ্যানের ভাষ্য, ‘শারীরিক প্রতিবন্ধী শিশুদের কাছে আমি বিশেষভাবে দুঃখিত। এখন যেহেতু বুঝেছি, প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি আগামীতে আরও সচেতন থাকবো। অভিভাবক সবার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করি। তোমাদের পরিবারকে হতাশ করার জন্য আমি দুঃখিত।’

ইনস্টাগ্রামে লাকি ফিন প্রজেক্টের একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন হ্যাথাওয়ে। শারীরিক প্রতিবন্ধীদের সহায়তা দিয়ে থাকে সংস্থাটি।

কমেডিয়ান অ্যালেক্স ব্রুকারের মন্তব্য, ‘যেসব প্রতিবন্ধীর আঙুল নেই বা সংখ্যা কম তারা ভীতিকর। ছবিটি এমন বার্তাই তো দিলো।’

 

তবে এমন পরিস্থিতির জন্য হ্যাথাওয়েকে দোষ দিচ্ছেন না এই কমেডিয়ান। এসব ক্ষেত্রে আরও সচেতনতা ও শিক্ষার প্রয়োজন বলে মনে করেন তিনি।

১৯৮৩ সালে প্রকাশিত ব্রিটিশ কথাশিল্পী রোলড ডালের গ্রন্থ অবলম্বনে ছবিটি পরিচালনা করেছেন রবার্ট জেমেকিস। কোভিড-১৯ মহামারির কারণে সিনেমা হলের পরিবর্তে ‘দ্য উইচেস’ মুক্তি পেয়েছে এইচবিও ম্যাক্স স্ট্রিমিং সাইটে।