বগুড়ায় ঋণের টাকা শোধ করতে না পেরে গৃহবধূর আত্মহত্যা2 মিনিটে পড়ুন

32

নিজস্ব প্রতিবেদক

বগুড়া সদরের নওদা পাড়ায় ঋনের টাকা শোধ করতে না পেরে সপরিবারে গ্যাস ট্যাবলেট সেবনে বুলবুলি খাতুন (২০) নামে এক গর্ভবতী গৃহবধূ মারা গেছেন।  এ ঘটনায় তার স্বামী ও মেয়ে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আহত দুই জন হলেন মহিদুল ইসলাম (৩০) ও তার মেয়ে মেঘলা (৬)। পেশায় লেদ মিস্ত্রি মহিদুল নওদা পাড়ার রাজা সিএনজি পাম্পের পশ্চিম পাশে বাস করেন।

বুধবার (১১ নভেম্বর) বিকেলে মেডিকেল ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক মো. রফিকুল ইসলাম এ কথা জানিয়েছেন।

পুলিশ জানায়, বুধবার ভোর রাত ৪ টার দিকে গ্যাস ট্যাবলেট খেয়ে অসুস্থ অবস্থায় মহিদুল, তার স্ত্রী ও মেয়েকে শজিমেকে নিয়ে আসা হয়। এর আগে গতকাল তারা রাত ৯ টার দিকে একটি গ্যাস ট্যাবলেট ভাগ করে  তিন জন সেবন করেন। পরে অসুস্থ হয়ে পড়লে ভোর রাতে তাদের শজিমেকে ভর্তি করানো হয়।

ট্যাবলেট সেবনের ফলে বুলবুলি খাতুন হাসপাতালে ভর্তির পর দুপুরের দিকে মারা যান। এ সময় তার গর্ভের সন্তানও মারা যায়। আর মহিদুল ও মেয়ে মেঘলা কিছুটা সুস্থ রয়েছেন। তবে এখনও শঙ্কামুক্ত নয়। মহিদুল কথা বলতে পারছেন। তার কাছে পুলিশ জানতে পারে আত্মহত্যা চেষ্টার কারন।

তার বরাতে পরিদর্শক মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, মহিদুল বিভিন্ন এনজিও থেকে চার লাখ টাকা ঋণ নেন। যা শোধ করতে পারছেন না। ঋণের বোঝা সইতে না পেরে তারা স্বামী-স্ত্রী আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নেন।

বুলবুলির লাশ মর্গে আছে বলে জানান মেডিকেল ফাঁড়ির ইনচার্জ আব্দুল আজিজ মন্ডল।