বগুড়ায় পরিবারের নিরাপত্তা চেয়ে সংবাদ সম্মেলন

240

স্টাফ রিপোর্টার: বগুড়ার গাবতলীর সোনারায় ইউনিয়নের টিওরপাড়া গ্রামে ঘটে যাওয়া সন্ত্রাসী ঘটনার সুষ্ট তদন্ত এবং এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী, দাদন ব্যবসায়ী, মাদক ও অস্ত্র মামলার আসামীদের হাত থেকে নিরাপত্তার দাবীতে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।
রোববার দুপুরে বগুড়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে গাবতলীর টিওরপাড়া গ্রামের আব্দুল হান্নান সরকারের স্ত্রী মিলন বেগম লিখিত বক্তব্যে বলেন, গত ৭//২০ তারিখে সাইফুল ইসলামের ছেলে আশরাফুল ইসলাম তার স্বামী আব্দুল হান্নানকে ডেকে নিয়ে সাইফুলের বাড়ির কাছে গিয়ে মারপিট করে। এসময় এয়ারগান ও দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে এলাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী, দাদন ব্যবসায়ী, একাধিক হত্যা, মাদক ও অস্ত্র মামলার আসামী জাহাঙ্গীর, সাইফুল, আশরাফুলসহ আরো ১০/১২ জন জড়ো হয়ে হান্নানের উপর হামলা চালায়।
সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, সাইফলের সাথে হামলায় যোগ দিয়ে, শিপন, ঝিনুক, মিঠু মোল্লা, টিপু মোল্লা, ময়েজ মোল্লার ছেলে ইয়াছীন মোল্লা, জাহাঙ্গীরের ছেলে ব্যাংকের টাকা ছিনতাইকারী রাকিব, আছিফ, আব্দুল জোব্বারের ছেলে আব্দুর রহিম, আনিছুর রহমানের ছেলে জাকিরুল ইসলাম, আব্দুর রহমানের ছেলে হেলাল আমার স্বামীকে মারপিট করতে খাকে। এতে আমার স্বামীর পা ভেঙ্গে যায় ও শরীরের বিভিন্ন অঙ্গে গুরুতর জখম হয়। এসময় হান্নান কে বাঁচাতে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে আশরাফুলের পিতা সাইফুল তার এয়ারগান দিয়ে সাধারণ জনগনের উপর গুলি বর্ষণ করে।
এরপর স্থানীয়রা হান্নানকে উপদ্ধার করে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে ভর্তি করে। পরে সন্ধ্যায় পুলিশ গিয়ে এয়ারগান সহ মাদক ব্যবসায়ী সাইফুলকে গ্রেফতার করে। এঘটনায় আমি বাদি হয়ে থানায় মামলা করি।
তিনি আরো বলেন, গ্রেফতার হওয়া সাইফুল একদিন পরেই জামিনে বের হয়ে আসে। এসেই সে মামলার অনান্য আসামীরা এলাকায় সংঘবদ্ধভাবে মহড়া দিচ্ছে। তারা এখনও গ্রেফতার হয়নি। এঅবস্থায় আমরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছি। তিনি সন্ত্রাসীদের কবল থেকে রক্ষাপেতে ও পরিবারের নিরাপত্তার জন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়, বগুড়ার পুলিশ সুপার, র‌্যাব, এবং প্রশাসনের সকলের কাছে সাহায্য কামনা করেছেন।