ভারত থেকে সরে যেতে পারে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ2 মিনিটে পড়ুন

25

বগুড়া এক্সপ্রেস ডেস্ক

করোনা মহামারির কারণে চলতি বছর হয়নি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। অস্ট্রেলিয়ার এই আসরটি হবে ২০২২ সালে। আগামী বছর টি-টোয়েন্টির বিশ্ব আসর বসবে ভারতে। অক্টোবর-নভেম্বরে হতে যাওয়া আসরটি অন্য দেশে সরে যেতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) প্রধান নির্বাহী ওয়াসিম খান।

আগামী ফেব্রুয়ারি-মার্চে ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজ আয়োজনের পরিকল্পনা করছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)। এপ্রিলে দেশেই আইপিএল আয়োজন করতে চায় তারা। পিসিবি প্রধান নির্বাহী বলেন, ‘কিছু বিষয়ের কারণে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ভারতে আয়োজিত হবে কী না তা নিয়ে অনিশ্চয়তা রয়েছে। তার অন্যতম করোনা পরিস্থিতি। ভারতের করোনা পরিস্থিতির উন্নতি না হলে আসরটি সরে যেতে পারে আরব আমিরাতে।’

রাজনৈতিক কারণে প্রায় ৯ বছর ধরে দ্বিপাক্ষিক সিরিজে মুখোমুখি হয় না ভারত-পাকিস্তান।

২০১৬ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতে শেষবার ভারতে এসেছিল পাকিস্তান। আসছে বছরের সংক্ষিপ্ত সংস্করণের বিশ্ব আসরের জন্য আগেই ভারতের ভিসা পাওয়ার নিশ্চয়তা চায় পিসিবি। গত অক্টোবরেই পিসিবি আইসিসির কাছে ভিসা নিয়ে চিঠি পাঠিয়েছে। জানুয়ারির মধ্যেই ভিসার নিশ্চয়তা চায় পিসিবি। সেটাই নতুন করে বললেন ওয়াসিম খান, ‘এহসান মানি (পিসিবি চেয়ারম্যান) আইসিসির কাছে পাঠানো চিঠিতে দু’দেশের রাজনৈতিক বিষয়টি উল্লেখ করেছেন। আমরা আশা করছি ভিসার বিষয়ে আইসিসি এবং বিসিসিআই লিখিত ভাবে জানাবে।’

গত সপ্তাহে অনলাইনে অনুষ্ঠিত হয়েছে এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের (এসিসি) বৈঠক। সেখানে আলোচনা হয়েছে ২০২১ ও ২০২২ এশিয়া কাপ নিয়ে। আগেই সিদ্ধান্ত হয়েছে, ২০২১ সালের জুনে শ্রীলঙ্কায় বসবে পরবর্তী এশিয়া কাপ। ওয়াসিম খান জানিয়েছেন ২০২২ এর এশিয়া কাপ আয়োজনের দায়িত্ব পেয়েছে পাকিস্তান। তিনি বলেন, ‘যদি প্রয়োজন হয় শ্রীলঙ্কার আসরটির তারিখ পেছানো হতে পারে। গত সপ্তাহের সভায় আনুষ্ঠানিকভাবে ২০২২ এশিয়া কাপ আয়োজনের দায়িত্ব পেয়েছে পাকিস্তান।’