রুদ্ধশ্বাস জয়ে প্লে-অফে বরিশাল4 মিনিটে পড়ুন

31

বগুড়া এক্সপ্রেস ডেস্ক

টান টান উত্তেজনা আর রোমাঞ্চ ছড়ানো ম্যাচে বেক্সিমকো ঢাকাকে ২ রানে হারিয়ে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের প্লে-অফে জায়গা করে নিয়েছে ফরচুন বরিশাল।

মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করতে নেমে সাইফ, হৃদয় ও আফিফের চমক লাগানো ফিফটিতে তিন উইকেটে ১৯৩ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ে বরিশাল। জবাবে বেক্সিমকো ঢাকা ৬ উইকেটে করে ১৯১ রান। হারলেও ঢাকার হয়ে দারুণ এক সেঞ্চুরি উপহার দিয়েছেন ওপেনার মোহাম্মদ নাঈম শেখ।

লিগ পর্ব শেষে পয়েন্ট তালিকায় সবার উপরে চট্টগ্রাম (১৪ পয়েন্ট)। এরপর যথাক্রমে খুলনা (৮), ঢাকা (৮) ও বরিশাল (৬)। ৪ পয়েন্ট সংগ্রহ করা রাজশাহীর বিদায় ঘটল। ১৮.৩ ওভারের মধ্যে ঢাকা জিতে গেলে চতুর্থ দল হিসাবে প্লে-অফ খেলত রাজশাহী। ঢাকার হার দূরে থাক, দারুণ এক জয়ে দাপটের সাথে প্লে-অফ নিশ্চিত করল তামিম শিবির।

 

১৪ ডিসেম্বর এলিমিনেটর ম্যাচে ঢাকার মুখোমুখি হবে বরিশাল। একই দিনে প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচে পরস্পরের মোকাবেলা করবে চট্টগ্রাম ও খুলনা। ১৫ ডিসেম্বর দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার। ১৮ ডিসেম্বর কাঙ্ক্ষিত ফাইনাল।

জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ঢাকার হয়ে সাব্বির (১৯), মুশফিক (৫), আল আমিন (০) দ্রুত বিদায় নিলেও ব্যাট হাতে দুর্দমনীয় ছিলেন ওপেনার মোহাম্মদ নাঈম শেখ। ৬২ রানে ৩ উইকেট হারানো ঢাকাকে নাঈম-ইয়াসির জুটি নিয়ে যান ১৭২ রান পর্যন্ত। নাঈম যখন বিদায় নেন, তখন তার নামের পাশে জ্বলজ্বলে দারুণ এক সেঞ্চুরি। ৬৪ বলে তিনি খেলেন ১০৫ রানের মনোমুগ্ধকর ইনিংস। টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে নাঈমের এটিই প্রথম সেঞ্চুরি। বঙ্গবন্ধু কাপে তৃতীয় সেঞ্চুরি।

নাঈমের দুর্ধর্ষ ইনিংসে ছিল ৮টি চার ও ৭টি ছক্কার মার। শেষ দিকে ২৮ বলে ৪১ রানের দারুন ইনিংস খেলেন ইয়াসির আলী। শেষ দুই বলে ঢাকার দরকার ছিল ৯ রান। পঞ্চম বলে রান নিতে পারেননি। শেষ বলে ছক্কা হাকিয়ে ঢাকার আফসোস বাড়ান আকবর আলী।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে বরিশালের হয়ে দারুণ শুরু করেন তামিম ও সাইফ। ৫৯ রানে ভাঙে জুটি। ১৭ বলে ১৩ রানে বিষণ্ণ বদনে সাজঘরে ফেরেন অধিনায়ক তামিম। দলীয় ৮২ রানে ফেরেন ইমন। ১৩ বলে ১৩ রান তার, একটি করে চার ও ছক্কা।

তবে ফিফটি করে সাজঘরে ফেরেন ওপেনার সাইফ। রুবেলের বলে ফেরত যাওয়ার আগে তিনি করেন ৪৩ বলে ৫০ রানের ইনিংস খেলে। আটটি চার ছিল তার ইনিংসে। তিন উইকেট পড়ার পর বরিশালের বড় ইনিংস নিয়ে শঙ্কা ছিল অনেকের মনে। কিন্তু সেই শঙ্কা তুমুল উইলোবাজিতে উড়িয়ে দেন আফিফ হোসেন ও তৌহিদ হৃদয়। দুজনে করেন মনমাতানো ব্যাটিং। একের পর এক চার-ছক্কায় কাঁপিয়ে তোলেন মিরপুরের গ্যালারি।

৩৯ বলে ৯১ রানের অবিশ্বাস্য জুটি গড়ে অবিচ্ছন্ন থাকেন আফিফ ও হৃদয়। ২২ বলে ৫১ রান করেন হৃদয়। চারটি ছক্কার সাথে দুটি ছক্কা রয়েছে তার। অন্যদিকে ২৫ বলে ৫০ রানে নট আউট আফিফ। চার মাত্র একটি, কিন্তু ছক্কা পাঁচটি।